নীড় পাতা / পাহাড়ের সংবাদ / খাগড়াছড়ি / ঢাকায় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের গোল টেবিল বৈঠক
parbatyachattagram

নারী নেত্রী কল্পনা চাকমা অপহরণ

ঢাকায় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের গোল টেবিল বৈঠক

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেত্রী কল্পনা চাকমা অপহরণের ২৩ বছরে ঢাকায় গোল টেবিল বৈঠক করেছে প্রসিত খীসার নেতৃত্বাধীন ইউপিডিএফের সহযোগী সংগঠন হিল উইমেন্স ফেডারেশন। সংগঠনের সভাপতি নিরুপা চাকমার সভাপতিত্বে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হল রুমে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সঞ্চালনা ও লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা।

গোল টেবিল আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন- বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও বাসদ নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাংলাদেশ লেখক শিবিরের সভাপতি হাসিবুর রহমান, ব্যারিষ্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া, লেখক ও অনুবাদক ওমর তারেক চৌধুরী, ব্যারিষ্টার সাদিয়া আরমান, বাসদ-মার্কসবাদীর কেন্দ্রীয় নেতা মানস নন্দী, নয়া গণতান্ত্রিক গণমোর্চার সভাপতি জাফর হোসেন, সমগীত সংস্কৃতি প্রাঙ্গণের সদস্য বীথি ঘোষ, শ্রমিক নেতা শহীদুল ইসলাম সবুজ, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মিতু সরকার, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি ইমরান হাবিব রুমন, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শম্পা বসু, সিপিবি নারী সেলের সদস্য লুনা নুর, শ্রমজীবী নারী মৈত্রীর সভাপতি বহ্নিশিখা জামালি প্রমুখ।

এসময় বাংলাদেশ লেখক শিবিরের সভাপতি হাসিবুর রহমান বলেন, ‘১৯৫২ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত বাংলাদেশের এই ভূখন্ডে গণআন্দোলনের ওপর যেসব আঘাত এসেছে তার কোনোটার বিচার হয়নি। কোনো ঘটনার তদন্তের শে^তপত্র প্রকাশ করা হয়নি। কল্পনা চাকমার অপহরণের মামলার দীর্ঘসূত্রিতার ব্যাপারটিও তার ধারাবাহিকতার অংশ।’

এক সময় কল্পনা চাকমা অপহরণ মামলার সাথে যুক্ত ছিলেন জানিয়ে ব্যারিষ্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, ‘কল্পনা চাকমা অপহরণ নিয়ে জুডিশিয়ারি ইনকোয়ারি থেকে শুরু করে গণ-প্রতিনিধিত্বের অংশগ্রহণে অনেক তদন্ত হয়েছে। কিন্তু তারা তদন্তের কোনো ফয়সালা করতে পারেনি বা করেনি।’

লেখক ওমর তারেক চৌধুরী বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্রের সংকট রয়েছে। গণতান্ত্রিক পরিবেশ থাকলে মাইকেল চাকমা গুম হতেন না। বর্তমান পরিস্থিতি থেকে উত্তোরণের পথ হচ্ছে গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন। সব মত পথ ভূলে গিয়ে এই সময়ে সবার একমাত্র দাবি হওয়া উচিত গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার।’

বাসদ-মাকর্সবাদী নেতা মানস নন্দী বলেন, ‘পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর ওপর দীর্ঘদিন ধরে যে নিপীড়ন চলছে তার বিরুদ্ধে সকল প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল, সংগঠন, ছাত্র, নারী, শ্রমিক ও পেশাজীবী সংগঠনসমূহকে সম্মিলিত আন্দোলনের মাধ্যমে প্রতিরোধ করতে হবে। এই প্রেক্ষিতে আন্দোলন করতে আমাদের মতভেদ থাকতে পারে কিন্তু নিপীড়নের জায়গায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

গণমোর্চার সভাপতি জাফর হোসেন বলেন, ‘এই ২৩ বছরে কোনো সরকার কল্পনা চাকমার অপহরণের বিচার করার জন্য সদিচ্ছা দেখায়নি।’

বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত বলেন, ‘কল্পনা চাকমা কেবল একজন নারী বলে তাকে অপহরণ করা হয়েছে তা নয়। তাকে অপহরণ করার প্রধানতম কারণ হল তিনি পাহাড়ের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অধিকারের জন্য লড়াই করতেন।’

শ্রমজীবী নারী মৈত্রীর সভাপতি বহ্নিশিখা জামালী বলেন, ‘কল্পনা চাকমা অপহরণ বাংলাদেশে একটা আলোচিত ঘটনা। অথচ ২৩ বছরেও এর বিচার হয়নি।’

ব্যারিষ্টার সাদিয়া আরমান বলেন, ‘দেশে আজ নারীরা কোথাও নিরাপদ নয়। আনুপাতিকভাবে ধর্ষণ ও ধর্ষনের পর হত্যার ঘটনা সমতলের তুলনায় পাহাড়ে বেশি এবং এসব ধর্ষনের কোনো ঘটনার আজ পর্যন্ত বিচার হয়নি।’

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘রাষ্ট্র বিচারহীনভাবে ঠান্ডা মাথায় তার নাগরিকদের যেভাবে হত্যা, গুম করছে তার নজির ব্রিটিশ, পাকিস্তান পিরিয়ডেও কিছু ব্যতিক্রম বাদে নেই।’

বাসদ নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ বলেন, ‘সরকার প্রতিনিয়ত শ্রমিকদের সাথে চুক্তি করে এবং ভঙ্গ করে। ছাত্রদের আশ^াস দেয় কিন্তু রাখে না। এটা এখানকার শাসকদের সংস্কৃতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাহলে এই শাসকদের কিভাবে বিশ^াস করব তারা চুক্তি করে পাহাড়িদের অধিকার দিবে। শাসকরা তাদের শ্রেণি চরিত্র নিয়ে সচেতন ও ঐক্যবদ্ধ। কিন্তু আমরা কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি ও নিপীড়ত জাতিসত্ত্বার মানুষ বিচ্ছিন্ন।’

জাতীয় মুক্তি কাউন্সিঃেল সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম বলেন, ‘কল্পনা চাকমা, মাইকেল চাকমাদের ফিরে পেতে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে সবর থাকতে হবে।’ (বিজ্ঞপ্তি)

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে অপহৃত ৬ পাহাড়ি মুক্ত

অপহরণের ২৪ ঘন্টা পর মুক্তি পেয়েছে বান্দরবানের রুমা থেকে অপহৃত ৬ পাহাড়ী। সোমবার বিকাল ৪টার …

Leave a Reply