রাঙামাটি

জেএসএস চুক্তিবিরোধীদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলেছে

জনসংহতি সমিতি স্ববিরোধী বক্তব্য দিচ্ছে অভিযোগ করে ২৯৯নং আসনের আওয়ামীলীগের সংসদ প্রার্থী দীপংকর তালুকদার বলেছেন, জেএসএস চুক্তির পক্ষের মানুষকে হত্যা করছে, আর চুক্তিবিরোধী মানুষের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলেছে। তিনি বলেন, বিএনপি চুক্তি বাস্তবায়নে প্রধান বাধা। কিন্তু তারপরও ২০০১ সালে জনসংহতি সমিতির বিএনপির প্রার্থীকে সমর্থন দেয়। চুক্তি পক্ষের সংগঠন জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) আর চুক্তির বিরোধী সংগঠন হচ্ছে ইউপিডিএফ। বর্তমানে জনসংহতি সমিতি ইউপিডিএফকে আদর করছে আর চুক্তির পক্ষের এমএন লারমা গ্রুপের নেতা-কর্মীদের হত্যা করছে। এতেই বোঝা যায় চুক্তি বাস্তবায়ন আদৌ তারা চায় কিনা। শনিবার দুপুরে দীপংকর তালুকদারের নিজ বাসভবনে ৩০ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচন নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

দীপংকর তালুকদার বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনে জনসংহতি সমিতি ৫৩টি কেন্দ্রে ৯৬-৯৯ শতাংশ ভোট ডাকাতির মাধ্যমে আওয়ামীলীগের বিজয় ছিনিয়ে নেয়। সে সময়ে আমি পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী থাকলেও নির্বাচনে কোনও হস্তক্ষেপ করেনি। ঊষাতন তালুকদার নির্বাচিত হলেও গত পাঁচ বছর তিনি একটি ইটও কোথাও বসাতে পারেনি। চুক্তির একটা লাইনও তিনি বাস্তবায়ন করতে পারেনি। এরপরও তাদের সব দোষ আওয়ামীলীগের দিকে। দীপংকর তালুকদার বলেন, জনসংহতি সমিতির দাবি করে তারা জুম্ম জনগণের অধিকার আদায়ে কাজ করে। কিন্তু ২০১৪ সালে তারা যে ৫৩টি কেন্দ্রে ভোট ডাকাতি করে, সবগুলোই হলো জুম্ম অধ্যুষিত এলাকায়। তাহলে অধিকার আদায়ের কথা বলে কিভাবে তারা জুম্ম জনগণের ভোট হরণের মাধ্যমে অধিকার আদায় করে, সেটা বোঝা বেশ মুশকিল। তিনি বলেন, মৌলবাদীদের মূল টার্গেট হচ্ছে আওয়ামীলীগ। সেটা বাঙালি মৌলবাদ হোক আর পাহাড়ি মৌলবাদ হোক।

নির্বাচিত হলে দীপংকর তালুকদার এলাকার সম্প্রীতি রক্ষার পাশাপাশি পর্যটন বিকাশে বিশেষ প্রকল্প গ্রহণের পরিকল্পনা জানান। এছাড়া তিনি দারিদ্রসীমার নিচে বাস করা জনগণের জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে, যার উপকারভোগী প্রায় ৫০ হাজারের মতো হবে। এছাড়া পাহাড়ি এলাকা হিসেবে করে কৃষি কলেজ প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ও কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে তিনি জানান। এছাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের উন্নয়নে মেডিকেল কলেজের জন্য ৪৫০ বেডের একটি হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে, স্থলবন্দর চালুর বিষয়েও উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

গত পাঁচ বছরে সরকারের নানান উন্নয়নের মধ্যে নানিয়ারচর সেতু, মেডিকেল কলেজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, বিদ্যুৎ সরবরাহসহ নানান উন্নয়নের বিষয়গুলো তুলে ধরেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button