খাগড়াছড়িব্রেকিংলিড

জেএসএস কর্মীর খুনি দুই ইউপিডিএফ কর্মী আটক !

জেএসএসকর্মী (এমএন লারমা) মঞ্জুকে গুলি করে হত্যা মামলার দুই আসামিকে অস্ত্র, গুলিসহ গ্রেফতার করেছে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী। গ্রেফতারকৃতরা প্রসিত খীসার নেতৃত্বাধীন ইউপিডিএফের (ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট) সক্রিয় কর্মী বলে দাবি করেছেন জেএসএস (এমএন লারমা) ক্রেন্দ্রীয় কমিটির সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক প্রশান্ত চাকমা। অপরদিকে ইউপিডিএফের (প্রসিত) তথ্য ও প্রচার বিভাগের প্রধান নিরন চাকমা দাবী করেছেন গ্রেফকারকৃতরা তাদের সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত নয়।

হত্যা ঘটনার তিন দিনের মাথায় রাঙামাটি সদরের রিজার্ভ বাজার এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা মঞ্জু হত্যা মামলার এজাহারভূক্ত আসামি এবং তাদের তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবী করে পুলিশ জানিয়েছে, তাদের গতকাল (বৃহষ্পতিবার) বিকালে রাঙামাটি থেকে দীঘিনালা থানায় আনা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে পৃথক মামলা হবে এবং হত্যা ঘটনায় নিবির জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড চেয়ে আজ (শুক্রবার) আদালতে পাঠানো হবে।

গ্রেফতারকৃতরা দুজনেই হত্যা কান্ডের ঘটনাস্থল দীঘিনালা-লংগদু সড়কের শিমুলতলি এলাকার বাসিন্দা জ্ঞানজ্যোতি চাকমার ছেলে পূর্নজ্যোতি চাকমা (৩৫) এবং সন্ধি বিকাশ চাকমার ছেলে মহারথ চাকমা (৪২)। রবিবার সন্ধা সাড়ে ৬টায় শিমুলতলি দোকানের সামনে গুলি করে হত্যা করা হয় মঞ্জু চাকমাকে। ঘটনার তিনদিন পর (বুধবার) বিকালে রাঙ্গামাটি সদরের রিজার্ভ বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় এ দুজনকে। গ্রেফতারের পর তাদের নিকট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে একটি পিস্তল, পিস্তলের দুইটি ম্যাগাজিন, ৯ রাউন্ড গুলি, নগদ ৫০ হাজার টাকা এবং ৪টি মোবাইল ফোনসেট।

আইনশৃংখলা রক্ষাকারীবাহিনীর একটি দায়িত্বশিল সূত্র জানিয়েছেন, হত্যাকান্ডে জড়িতদের প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে। হত্যা মিশনে যাওয়ার আগে দ্জুনের মোবাইল ফোন এক জায়গায় জমা রেখে হত্যাকান্ডে অংশ নেয়। এর মধ্যে একজন নিজ হাতে গুলি করে হত্যা করে মঞ্জুকে। হত্যা ঘটনার আগে-পরে তাদের ফোনালাপ এবং অবস্থান তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে তাদেরকে রাঙামাটি সদরের রিজার্ভ বাজার এলাকার একটি আবাসিক হোটেল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম চন্দ্র দেব গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে পৃথক একটি মামলা দায়ের করা হচ্ছে; আর আজ (শুক্রবার) তাদের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, রবিবার সন্ধায় উপজেলা সদরের প্রায় ২০ কি. দুরে দীঘিনালা-লংগদু সড়কের শিমুলতলি এলাকায় দোকনের সামনে গুলি করে হত্যা করা হয় জেএসএসকর্মী (এমএন লারমা) মঞ্জু চাকমাকে (৪৭)। সেরাতে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে পরদিন ময়না তদন্ত শেষে উপজেলার তারাবুনিয়া এলাকার ডলুছড়ির নিজ বাড়িতে দাহ করা হয়। বুধবার নিহতের ছেলে জুনেল চাকমা বাদি হয়ে ৩১জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দ্বায়ের করেন। এর মধ্যে গ্রেফতারকৃতরা সে মামলার ২৩ ও ২৪ নম্বর এজাহারভূক্ত আসামি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 3 =

Back to top button