ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

জুরাছড়িতে আমতুলী ধর্মোদয় বিহারে কঠিন চীবর দানোৎসব

যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদা এবং ভাবগাম্ভীর্যের সাথে জুরাছড়ি আমতুলী ধর্মোদয় বনবিহারে উদযাপন করা হয়েছে কঠিন চীবর দানোৎসব। সোমবার নানান আনুষ্ঠানিকতায় দানোৎসব সম্পন্ন হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যায় সুগত চাকমার পরিচালনায় ধর্মীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয় যা পরদিন আকাশ প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে শেষ হয়। একরাত্রের মধ্যে কঠিন চীবর বুনন কার্য সম্পাদনের জন্য তুলা থেকে সুতা, এরপর সুতা টিয়ানো ও সুতা রং করে লাঙ্গানো শেষে পরে কাপড় বুনন করা হয়। এসময় সন্ধ্যায় অষ্টপরিষ্কার দান করা হয়। দান কর্ম শেষে ধর্ম দেশনা প্রদান করেন অতিথি ভিক্ষু ড:জিনবোধি মহাস্থবির।

পরের দিন সোমবার সকাল এবং বিকালে কঠিন চীবরটি ব্যান্ড দলের সুরের তালে নেচে গেয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে বিহারে চারিদিকে প্রদক্ষিণ করে পূণ্যার্থীরা। পরে ভিক্ষু সংঘের উপস্থিতিতে কঠিন চীবরটি কঠিন থেকে আরো কঠিনে পরিণত করা হয়। এতে অন্যান্য অনুষ্ঠানের মধ্যে পঞ্চশীল হনের মাধ্যমে আত্মসিদ্ধির জন্য বুদ্ধমূর্তি দান, সংঘ দান, অষ্টপরিষ্কারদান, পিন্ডদানসহ নানাবিধদানের পূণ্যানুষ্ঠান করা হয়। এসময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি জেলা পরিষদ সদস্য জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, উপজেলা সেনাবাহিনী জোনের প্রতিনিধি মেজর মো: সরকার মাহবুব মোর্শেদ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিটন চাকমা প্রমূখ। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কেতন চাকমা।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রবর্তক চাকমা, সাবেক ২নং বনযোগীছড়া চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, ১নং ইউপি চেয়ারম্যান বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি নিগিরেশ্বর চাকমা, ১ নং ইউপি চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা, ২নং ইউপি চেয়ারম্যান সন্তোষ বিকাশ চাকমা, ৩নং সাধনানন্দ চাকমাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে পূণ্যানুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করা হাজারো পূণ্যার্থীবৃন্দ। উক্ত অনুষ্ঠানে শিষ্য মন্ডলীসহ স্বধর্ম দেশনা প্রদান করেন রাঙামাটি রাজবন বিহার অধ্যক্ষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির, শ্রীমৎ জ্ঞানপ্রিয় মহাস্থবির, শ্রীমৎ সুধর্মানন্দ স্থবির ভান্তেপ্রমূখ।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button