নীড় পাতা / পাহাড়ের সংবাদ / বান্দরবান / ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে বড় ভাইয়ের যত অভিযোগ

ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে বড় ভাইয়ের যত অভিযোগ

ওয়ারিশদের বঞ্চিত করে বাবার নামীয় জায়গা নিজের নামে নামজারী করে নেওয়ার প্রতিবাদে বান্দরবানের লামা উপজেলায় ছোট ভাই আবদুল আলীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন রিকশাচালক বড় ভাই আকবর আলী। মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় কুটুমবাড়ী রেস্টুরেন্টের কনভেনশন হলে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

সাংবাদ সম্মেলনে আকবর আলীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, লামা সদর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. আবু সুফিয়ান। এ সময় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। আবদুল আলী লামা সদর ইউনিয়নের নুনারঝিরি এলাকার বাসিন্দা মৃত মহব্বত আলীর ছেলে।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত অভিযোগে আকবর আলী জানায়, ১৯৮১ সালে বাবা মহব্বত আলী ২৯৩নং ছাগল খাইয়া মৌজার আর/৪১৩নং হোল্ডিং মূলে সরকার কর্তৃক ৫ একর জায়গা বন্দোবস্তি পায়। ১৯৮৮ সালে বাবা মহব্বত আলীর মৃত্যুর পর আকবর আলী ও তার ছোট ভাই আবদুল আলী ওই জায়গায় বহু শ্রম ও অর্থ ব্যয়ে বসতঘরসহ ফলজ বনজ বাগান সৃজন করেন। এক পর্যায়ে আবদুল আলী বড় ভাই আকবর আলীর সরলতার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ২০১২ সালে স্থানীয় আবদুস সোবাহান নামের এক ব্যক্তিকে বাবা সাজিয়ে ৪ একর ৫০শতক জায়গা নিজের নামে নামজারী করে নেন। অথচ বাবা মৃত্যুকালে মাসহ ১১জন ওয়ারিশ রেখে যান। নিজের নামে জায়গা নামজারী করে নেওয়ার কারণে বর্তমানে আকবর আলীসহ ৯ জন ওয়ারিশ বঞ্চিত হয়েছেন। পরবর্তীত আকবর আলী নামজারি মামলা নং-১৮৯/লামা/২০১২ইং বাতিল করে তার বাবা মহব্বত আলীর নামে হোল্ডিং বহাল রাখার জন্য বান্দরবান জেলা প্রশাসনের নিকট এবং তার বাবার নামীয় জায়গা সকল ওয়ারিশদের নামে সমানভাগে বন্টন চেয়ে লামা থানায় আাবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে তৎকালীণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নির্দেশে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ থানার গোলঘরে বসে দুই ভাইয়ের মধ্যে ২ একর জায়গা সমান ভাগে ভাগ করে দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু আবদুল আলী সিদ্ধান্ত না মেনে উল্টো বান্দরবান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ও লামা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বড় ভাই আকবর আলী, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবু সুফিয়ানসহ শালিশকারকদের বিরুদ্ধে পৃথক দুইটি মামলা করেন। নামজারী বাতিলের জন্য আবেদন করায় ক্ষিপ্ত হয়ে একাধিক মিথ্যা অভিযোগ তুলে পাল্টা মামলা দিয়ে বড় ভাই আকবর আলীকে জেল খাটায় এবং আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেন আবদুল আলী। আবদুল আলী কর্তৃক নানা হয়রানি থেকে রক্ষাসহ বাবার নামে হোল্ডিং বহাল রাখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট সাংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জোর দাবি জানান আকবর আলী।

আরো দেখুন

রাঙামাটি শহরে আওয়ামীলীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ৮

পার্বত্য শহর রাঙামাটিতে নির্বাচনী পথসভাকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventeen − fifteen =