খাগড়াছড়ি

ছিনতাইয়ের ১৮ দিন পর মোটর সাইকেল উদ্ধার

মানিকছড়ি প্রতিনিধি ॥
মানিকছড়ি থেকে মোটর সাইকেল ছিনতাইয়ের ১৮ দিন পর রাউজান থেকে গাড়িটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাউজানের বৃন্দাবন থেকে গাড়ি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, মানিকছড়ি থানাধীন কর্নেল বাগান নামক এলাকা থেকে গত ৩০শে অক্টোবর রাত ৯টার দিকে মানিকছড়ি বাজারের চার ব্যবসায়ী বাড়ি ফেরার পথে গতিরোধ করে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে নগদ ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা, একটি পালসার মোটর সাইকেল ও ৫ টি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় দূস্কৃতিকারীরা।

ঘটনার সাথে সাথে মানিকছড়ি থানা সার্কেল সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম ও অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন ঘটনাস্থলের আশে-পাশে রাতভর অভিযান চালিয়ে খেলনা পিস্তলসহ তাৎক্ষণিক ২ সন্দেহভাজনকে আটক করেন। পরের দিন ভূক্তভোগী চার ব্যবসায়ী মানিকছড়ি থানায় ৩৯৪ ধারায় একটি ছিনতাইয়ের মামলা দায়ের করেন (যার নং-০৩)। আর এ মামলার দায়িত্বভার দেয়া হয় এসআই (নি:) আক্কাস আলীকে। এর পর হতে ওসি তদন্ত মো. আমজাদ হোসেন, এএসআই মিশন চৌধুরী ও এএসআই মাহবুব হাসান সম্পৃক্ত হয়ে ছিনতাইকৃত মালামাল উদ্ধারে যৌথ অভিযান পরিচালনা শুরু করেন।

ঘটনার দুই সপ্তাহ পর মানিকছড়ি থানা পুলিশের চৌকস অফিসারদের সাহসিকতা ও দূরদর্শিতায় ছিনতাই ঘটনায় জড়িত দুই আসামি থুইসাচিং মারমা (১৯) ও মো. ফয়সাল আহম্মেদ (২৪) কে বুধবার াটক করা হয় এবং তাদের স্বীকারোক্তিতে মোটরসাইকেল চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলাধীন বৃন্দাবন থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে মানিকছড়ি থানা পুলিশ।

আটক ছিনতাইকারী বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারায় ঘটনার জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. আক্কাছ আলী।

মানিকছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন জানান, ঘটনার পর পরই অভিজ্ঞ তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়ে যৌথ টিম গঠন করি এবং তাদের তৎপরতায় ছিনতাইকৃত মোটর সাইকেলটি উদ্ধার এবং ঘটনায় সরাসরি জড়িত ২জনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। আশা করছি ছিনতায়ের সাথে জড়িত সবাইকে আটক করতে সক্ষম হবো।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button