ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

চ্যাম্পিয়ন কনফিডেন্স ক্রিকেট একাডেমি

রাঙামাটিতে রিজিয়ন কাপ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে কনফিডেন্স ক্রিকেট একাডেমি। মঙ্গলবার দুপুরে রাঙামাটি মারী স্টেডিয়ামে এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় কনফিডেন্স ক্রিকেট দল ৬৪ রানে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি সংসদ পরাজিত করে। খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইনুর রহমান।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালকুদার, রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তাপস ঘোষ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সহ-সভাপতি সুনীল কান্তি দে, সাধারণ সম্পাদক শফিউল আজম প্রমুখ।

ফাইনাল খেলার সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেন, ‘এই পার্বত্য অঞ্চলে খেলোয়াড় তৈরির উপযুক্ত পরিবেশ বিরাজমান আছে। এখানকার মানুষের শারীরিক গঠন খাদ্যাভাস খেলাধুলার জন্য সহায়ক। তাই জাতীয় পর্যায়ে এখানকার অনেকেই সুনামের সাথে খেলে দেশের জন্য গৌরব বয়ে আনছে। এখানকার সকল প্রশাসন খেলাধুলা নিয়ে আন্তরিক। বিশেষ করে বাংলাদেশ সেনাবাহীনি শুধু এ অঞ্চলের আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে কাজ করে না। তারা খেলাধুলা, শিক্ষা, পর্যটন, স্বাস্থ্য কৃষিসহ সকল বিষয়ে এখানকার মানুষকে সহায়তা প্রদান করে থাকে। ফলে পার্বত্যাঞ্চল এগিয়ে যাওয়ার পেছনে সেনাবাহিনীর অবদান অনিস্বীকার্য।’

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইনুর রহমান বলেন, ‘রাঙামাটি রিজিয়ন বরাবরই সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। অতীতে খেলাধুলাসহ সকল কাজে যেমন আপনারে পাশে ছিলাম ভবিষ্যতেও থাকব। আগামী বছরও এ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের স্পন্সর হবে রাঙামাটি রিজিয়ন। এখানে অনেক প্রতিভা আছে। কিশোরী ফুটবলারদের প্রতিভা আছে। জুরাছড়ি কিশোরী কাবাডিদল জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে জেলার সুনাম অক্ষুণ্ন রেখেছে। আমি চাই ক্রিকেটেও এমন অর্জন আসবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার সামনে তোমরা যারা দাঁড়িয়ে আছ, তাদের মধ্য থেকেই আগামীর সাকিব, তামিম, মাশরাফির মত খেলোয়াড় তৈরি হবে। এমন মহৎ কাজে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অবদান রাখতে পারায় আমরা আনন্দিত ও গর্বিত। সিভিল প্রশাসনের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সেনাবাহীনিও এ অঞ্চলের অর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। আরও যা যা করা যায় সেগুলো করব। সর্বোপরি চ্যাম্পিয়ন রানারআপ দল ও দর্শকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি, আপনারাও এ মহতি উদ্যোগের সারথী হওয়ার জন্য।’

ফাইনাল খেলায় প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০ ওভার শেষে কনফিডেন্স ক্রিকেট একাডেমি ৭ উইকেটে ১৮২ রান সংগ্রহ করে। জবাব দিতে নেমে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি সংসদ ৯ উইকেট হারিয়ে ২০ ওভারে ১১৮ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়। পুরো প্রতিযোগিতায় ম্যান অব দ্যা সিরিজ হয়েছেন ইলিয়াস লেথাম।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button