পার্বত্য পুরাণব্রেকিংলিড

চিরশায়িত হলেন সাহিত্যিক মংছেনচীং মংছিন

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চির শায়িত হলেন মহালছড়ির সাহিত্যিক, সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী ও একুশে পদক প্রাপ্ত মংছেনচীং মংছিন রাখাইন। প্রয়াতের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে শোকাঞ্জলি দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে শেষ বিদায় জানান। এছাড়াও শোকাঞ্জলি দিয়ে শেষ বিদায় জানিয়েছেন খাগড়াছড়ি জেলার সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার পক্ষে ও খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের পক্ষে জেলা পরিষদ এর অন্যতম সদস্য জুয়েল চাকমা, খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার এর পক্ষে ও মহালছড়ি জোন অধিনায়ক লে: কর্নেল মেহেদি হাসান, সাবেক সাংসদ যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, মহালছড়ি উপজেলা শিক্ষা অফিস, সেচ্ছাসেবী সংগঠন আলোর ফেরিওয়ালা ও খাগড়াছড়ি জেলার সাংবাদিক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে স্মৃতিমূলক(শোক) ডায়েরিতে স্বাক্ষর করেন শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা অতিথিরা।

ধর্মীয় আনুষ্ঠিকতা শেষে রাখাইন সম্প্রদায়ের সামাজিক রীতিনীতি অনুযায়ী রোববার বিকালে পারিবারিক শ্মশানে দাহ করার নিয়ম থাকলেও প্রয়াতের শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী মাটি দিয়ে দাফন করা হয়।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে অবশেষে গত ৭ সেপ্টেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রামের একমাত্র একুশে পদক প্রাপ্ত মংছেনচিং মংছিন রাখাইন ৫৮ বছর বয়সে রাঙামাটির তাঁর বড় মেয়ের বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সেখান থেকে প্রয়াতের মরদেহ মহালছড়ি সদর এলাকার মানিক ডাক্তার পাড়ার নিজ বাড়ির পাশে দাফন করা হয়। তিনি ২০১৬ সালে সাহিত্যে বিভিন্ন অবদান রাখার জন্য একুশে পদক পান।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button