নীড় পাতা / পাহাড়ের সংবাদ / বান্দরবান / চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১
parbatyachattagram

বান্দরবানে

চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১

বান্দরবানের হাফেজঘোনায় চতুর্থ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মঙ্গলবার সকালে পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বান্দরবান সদরের হাফেজঘোনা এলাকার মনির আহম্মদ নিজের বাড়ির পাশ্ববর্তী একটি নূরানী মাদ্রাসা নির্মাণ করেছেন। কয়েকমাস আগে বান্দরবান হাফেজঘোনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী ঐ মাদ্রাসায় ভোরবেলায় পড়তে যান। তখন ঐ ছাত্রীকে একা পেয়ে বাসায় পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কথা বলে ছাত্রীকে ডেকে নিয়ে যান অভিযুক্ত ব্যক্তি। ছাত্রীকে বাসায় নেয়ার পর জোরপূর্বক শিশু মেয়েটিকে ধর্ষণ করে মনির আহম্মদ। এই ভাবে ঐ ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে ফুসলিয়ে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে আসছে ঐ ব্যক্তি। ক’দিন আগে ধর্ষিক ছাত্রী বিষয়টি তার আরেক বান্ধবীকে জানালে এলাকায় জানাজানি হয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় বান্দরবান সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিশ্চুক হাফেজঘোনার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, অভিযুক্ত মনির আহম্মদ এলাকায় আগেও বিভিন্ন মেয়েকে উত্যক্ত করে এবং কু-প্রস্তাব দিয়েছে।

ধর্ষিত ছাত্রীর মা মনোয়ারা বেগম ও পিতা মো: সফিক অভিযোগ বলেন, আমার শিশু মেয়েকে ধর্ষণ করেছে ঐ ব্যক্তি। আমরা গরীব-মানুষ। আমরা সরকারের কাছে অপরাধীর শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

তবে অভিযুক্ত মনির আহম্মদের স্ত্রী বলেন, আমরা এলাকায় অন্যদের চেয়ে প্রভাবশালী হওয়ায় আমাদের ভাল কেউ দেখতে পারেনা। তাই স্থানীয় লোকজন সবাই আমাদের নামে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আজকের ঘটনাটাও একটা ষড়যন্ত্র।

এ বিষয়ে বান্দরবান পুলিশ সুপার মো: জাকির হোসেন মজুমদার বলেন, ধর্ষণের ঘটনাটি আমরা শোনেছি। অভিযুক্ত ব্যক্তিতে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। তদন্তের মাধ্যমে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

দীঘিনালায় টিসিবি’র পেঁয়াজ বিক্রি

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় টিসিবি’র ডিলারের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে পেঁয়াজ বিক্রয় শুরু করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা সদরে …

Leave a Reply