রাঙামাটি

গাছকাটার সরঞ্জামসহ ২ বনদস্যু আটক

কর্ণফুলীর খালের মুখ বিট

কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলী বন রেঞ্জের খালের মূখ বিট এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে গাছ কাটার বিভিন্ন সরঞ্জামসহ ২ বনদস্যুকে আটক করেছে বন বিভাগ।

বিলম্বে পাওয়া খবরে জানা গেছে, রাইখালী,রাঙ্গুুনিয়াসহ বিভিন্ন এলাকা হতে আসা একশ্রেণীর বনদস্যু দীর্ঘদিন ধরে রেন্জের আওতাধীন বনে প্রবেশ পূর্বক গাছ কাটার সরঞ্জম ও দেশিও তৈরি অস্ত্র সমেত জঙ্গলে ঘাঁটি গড়ে তোলে। বন বিভাগের লোকদের চোখে ফাঁকি দিয়ে গভীর জঙ্গলে গিয়ে তারা রাতের অন্ধকারে গাছ কর্তন করে পাচার করে আসছে। বন বিভাগ এসব আস্তানার খবর পেয়ে গভীর জঙ্গলে টহল জোরদার করে।
কর্ণফুলী রেঞ্জ কর্মকর্তা গঙ্গা প্রসাদ চাকমা জানান,তার দিক নির্দেশনায়,খালের মুখ বিট কর্মকর্তা চন্দ্র শেখর দাশ ও তার টহলদল বনের মধ্যে পাহারা দিয়ে চলতি জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে ওই বন দস্যুদের আস্তানায় হানাদেয় এবং কয়েক রাউন্ড ফাঁকাগুলি করে পাচারকারীদের ছত্রভঙ্গ করে বেশ কয়েকটি গাছ কাটার করাত উদ্বার করে।

বিট কর্মকর্তা চন্দ্র শেখর দাশ বলেন,এক সাপ্তাহ না যেতে গত বুধবার (২৪ জুন) গভীর রাতে ১৯৩৯ সনের বাগানে টহলরত বন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে বনদস্যুদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং প্রায় ৮ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে।এতে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি। তবে এটনায় ১টি রদ্দা তৈরীর দা,১টি করাত, ১০ টুকরা সেগুন গোল কাঠসহ পাচারকারী বনদস্যু মংটু মারমা (৩০) ও মংবু অং মারমা (২২) কে হাতে নাতে আটক করতে সক্ষম হয়। এদের একজন হল রাইখালী গংগাছড়া পাড়ার মংসুইপ্রু মারমা ছেলে এবং অপরজন হল চিৎমরমের আগারপাড়ার চমংসিং মারমার ছেলে।

বিট কর্মকর্তা আরো বলেন,আসামিরা অত্যন্ত দুর্র্ধষ ও সন্ত্রাসী প্রাকৃতির। এরা সংখ্যায়ও অনেক বেশি ছিল বলে রাইফেলের ৫ রাউন্ড গুলি এবং শার্টগানের তিন রাউন্ড ফাঁকাগুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে আটক করতে সক্ষম হয়। ওইদিনেই আসামিদের বিরুদ্বে বন আইনের মামলা দায়ের করে আসামীদের রাঙামাটি চীপ জুডিশিয়াল আদালতে প্রেরণ করা হয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × five =

Back to top button