পাহাড়ের অর্থনীতিব্রেকিংরাঙামাটিলিড

কেমিক্যাল মিশিয়ে পাকানোয় ধ্বংস করা হলো ৩০ হাজার আনারস

রাঙামাটির নানিয়ারচরে অপরিপক্ক আনারস কেমিক্যাল দিয়ে পাকানোর অভিযোগের ৩০ হাজার পিস আনারস জব্দ করে ধ্বংস করেছে প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলায় বগাছড়ি সতের মাইল জিতেন পাড়া ও উনিশ মাইল নামক এলাকার দুটি বাগান থেকে এসব আনারস জব্দ করে উপজেলায় ধ্বংস করা হয়। তবে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

নানিয়াচর উপজেলা অফিসার ইনচার্জ মো. সাব্বির হোসেন বলেন, আমাদের কাছে তথ্য ছিল কিছু ব্যবসায়ী অতি মুনাফা লাভের আশার অপরিপক্ক আনারস কেমিক্যাল ব্যবহার করে পাকিয়ে তা ঢাকায় বিক্রির জন্য নিয়ে যাচ্ছেন। সেই তথ্যের ভিত্তিতে আজ অভিযান পরিচালনা করি এবং ৩০ হাজার পিস আনারস জব্দ করতে সক্ষম হই, তবে ব্যবসায়ীকে হাতে নাতে ধরতে না পারলেও তার পরিচয় জানা সম্ভব হয়েছে। তিনি আরো বলেন, যতদিন আনারসের মৌসুম থাকবে ততদিন আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

নানিয়ারচর মৌসুম ফল ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিঃ এর সাধারণ সম্পাদক মো. মনির হোসেন বলেন, করোনার এই মহামারীর সময় যারা এমন কাজ করতে পারে তারা মানুষ হতে পারে না। মাত্র কয়েকজনের কারণে আনারস চাষী ও প্রকৃত ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রশাসনের কাছে আমাদের অনুরোধ এসব যারা করে তাদের যেনো শাস্তির আওতায় নিয়ে আসে।

নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলি রহমান তিন্নী জানান, কিছু আনারস ব্যবসায়ি একেবারে অপরিপক্ক আনারস বিভিন্ন ক্যামিকেল মিশিয়ে পাকিয়ে তা ঢাকায় বিক্রিয় জন্য নিয়ে যাওয়ার সময় আমরা ট্রাকসহ আনারস জব্দ করি। ট্রাক চালকের সাথে কথা বলে জানতে পারলাম ক্যামিকেল মেশালে ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে আনারসগুলো পেকে যায় এবং ব্যবসায়ীরা হলে শাহজাহান ও মোস্তফা মিয়া। তাদের আটকের জন্য পুলিশ খোঁজ খবর নিচ্ছে।

প্রসঙ্গত, রাঙামাটি কৃষি অফিসের তথ্য মতে এবছর জেলায় ২১৫০ হেক্টর জমিতে আনারসে চাষ হচ্ছে। যার একটি বড় অংশ জেলার নানিয়ারচর উপজেলায়। এবছর বিক্রির লক্ষ্যমাত্র প্রায় ৫০ কোটি টাকার।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button
Close