খাগড়াছড়ি

কৃতী শিক্ষার্থী ও গুণী সংবর্ধনা দিলো অনির্বাণ শিল্পীগোষ্ঠী

পানছড়ি প্রতিনিধি ॥
এবারের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ফাইভ পাওয়া, খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলার শিক্ষার্থীদেরকে সংবর্ধনা দিয়েছে সাংস্কৃতিক সংগঠন অনির্বাণ শিল্পীগোষ্ঠী। ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া ১২জন কৃতী শিক্ষার্থীর হাতে শনিবার সকালে শিল্পীগোষ্ঠীর অফিসে ফুল, বই ও ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়।

অনির্বাণ শিল্পীগোষ্ঠীর সভাপতি জয়নাথ দেব এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মিঠুন সাহার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পানছড়ি উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনিতা ত্রিপুরা। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন পানছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার দেব, পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনচারুল করিম, উল্টাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, উল্টাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান বিজয় চাকমা, অনির্বাণ শিল্পীগোষ্ঠীর সাবেক সভাপতি ইউসুফ আলী।

পানছড়ি বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের জিনাত আরা জেরিন, মাহমুদা সুলতানা রাহিল, সিবিন চাকমা, আপন রায়, ত্রিভুবন চাকমা, ঊষা থুই মারমা, পানছড়ি পূজগাঙ মুখ উচ্চ বিদ্যালয়ের ভালেদী চাকমা ও প্রিসিলা চাকমা, পানছড়ি মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের জুলিয়াস চাকমা, জয় চাকমা এবং পানছড়ির সন্তান খাগড়াছড়ি ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের সুস্মিতা দেব ও শোয়াইব হাসান জিপিএ-৫ ফাইভ পাওয়ায়, অতিথিবৃন্দ তাদেরকে অভিনন্দন জানান।

এই সময় প্রধান অতিথি শিক্ষার্থীদেরকে উৎসাহদানের জন্য উপহার হিসেবে ১২ শিক্ষার্থীকে ছয় হাজার টাকা দেন। তিনি জানান, এই শিক্ষার্থীদের কৃতিত্বপূর্ণ রেজাল্ট অন্যান্যদেরকেও উৎসাহিত করবে। সাফল্যের ধারা ভবিষ্যতেও যেন অব্যাহত থাকে, পানছড়িবাসীর উপকারে আসে সে লক্ষে প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। আমরা আমাদের সাধ্যানুযায়ী সহযোগিতা দিয়ে পাশে থাকবো।

অন্যদিকে একই অনুষ্ঠানে শিক্ষা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাসহ সমাজে বিভিন্নভাবে ইতিবাচক ভূমিকা রাখায় সাতজনকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেছে আয়োজক কমিটি। আয়োজকগণ অনুষ্ঠানের সভাপতি, প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদেরকে সমাজসেবায় বিশেষ অবদান রাখায় সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। এসময় ৩নং সদর ইউপির ৪নং ওয়ার্ড সদস্য মতিউর রহমানসহ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পানছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার দেব বলেন, ভালো কাজের মূল্যায়ন করতে হবে। মূল্যায়ন করা হলে ভালো কাজে মানুষের উৎসাহ বৃদ্ধি পায়। সংবর্ধনা ও সম্মাননা অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button