ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

কাপ্তাই হ্রদে কচুুরিপানার বিড়ম্বনা, নৌ চলাচল বিঘ্নিত

কাপ্তাই প্রতিনিধি
রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের বিলাইছড়ি থেকে কাপ্তাই উপজেলা পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার নৌ-পথে বিড়ম্বনা হয়ে উঠেছে কচুরিপানা। এতে করে নৌ-পথে চলাচলকারী ছোট-বড় ইঞ্জিনচালিত নৌকাগুলোর স্বাভাবিক গতি বিঘ্ন হচ্ছে। ধীরলয়ে নৌ-যান চলাচল করায় যাত্রাপথে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের।

ইঞ্জিনচালিত নৌকাচালক ও স্থানীয়রা জানিয়েছেন, কাপ্তাই হ্রদের কাপ্তাই উপজেলা জেটিঘাট থেকে রাঙামাটি সদর, বিলাইছড়ি, বিলাইছড়ি উপজেলার ফারুয়া, হরিনছড়াসহ বিভিন্ন জায়গায় প্রতিদিন যাত্রীবাহী অসংখ্য ছোট-বড় ইঞ্জিনচালিত নৌকা এই নৌপথে চলাচল করে। এছাড়া সাপ্তাহিক হাটবাজারে পণ্যবাহী নৌকা চলাচল করে থাকে। বিলাইছড়ি উপজেলার বিভিন্ন ঝর্ণাগুলোর সৌন্দর্য অবলোকনের জন্য পর্যটকরা এই পথেই যাতায়াত করেন।

বর্তমানে কাপ্তাই জেটিঘাট থেকে বিলাইছড়ি উপজেলা সদরে যাওয়ার পথে হ্রদের মধ্যে কচুরিপানা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ায় দেড় ঘন্টার পথ দুই ঘন্টারও বেশি সময় লাগছে জানান ইঞ্জিনচালিত নৌকাচালক মনোরঞ্জন চাকমা।

এদিকে গত রোববার কাপ্তাই জেটিঘাট পল্টনে কথা হয় চালক আবুল কাসেম ও টিপু মিস্ত্রির সঙ্গে। তারাও একই দুর্ভোগের কথা জানান। টিপু ও কাসেম জানান, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কচুরিপানা বেড়ে যায় হ্রদে। শীতকাল পর্যন্ত এই কচুরিপানা থাকবে। যার ফলে স্বাভাবিক গতিতে আমরা বোট চালাতে পারি না।

কাপ্তাই জেটিঘাট বোট চালক সমিতির লাইনম্যান শীতল সরকার জানান, এখন কাপ্তাই হ্রদের বিলাইছড়ি, কেংড়াছড়ি, কাপ্তাই জেটিঘাট এলাকায় এত বেশী পরিমাণ কচুরিপানা ভাসছে; ফলে বোটের পাখায় কচুরিপানা আটকে বোটের গতিকে থামিয়ে দিচ্ছে।

এ পথে চলাচলকারী যাত্রী মো. শহীদুল ইসলাম, সত্যপ্রিয় তঞ্চঙ্গ্যা ও বিপ্লব বড়ুয়া জানান, বছরের এই সময়ে কাপ্তাই হ্রদে পানি বৃদ্ধি হলে কচুরিপানা ভেসে আসে। যার কারণে নৌপথ বোট দিয়ে যেতে আমাদের বাড়তি সময় লাগে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button