রাঙামাটি

কাপ্তাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পেলো অ্যাম্বুলেন্স

কাপ্তাই  প্রতিনিধি

রোগী পরিবহনে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবার উৎকর্ষ সাধনে যোগ হয়েছে একটি অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্স। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নতুন ক্রয়কৃত অ্যাম্বুলেন্স সরবরাহের তালিকায় সারাদেশের ২০ টি অগ্রাধিকারভুক্ত স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানের ১ টি হিসেবে সম্প্রতি এটি গ্রহণ করেন কাপ্তাই স্বাস্থ্য বিভাগ। যার ফলে দ্রুত রোগীদের হাসপাতালে নেয়া ও স্থানান্তরের কাজ সহজ হবে বলে মনে করছেন কাপ্তাই স্বাস্থ্য বিভাগের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মাসুদ আহমেদ চৌধুরী। কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল হক জানান, কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালের ওপর নির্ভরশীল উপজেলার ৫ ইউনিয়ন সহ পার্শ্ববর্তী রাঙ্গুনিয়া উপজেলার একাংশের মানুষ।

চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রটিতে আসা জটিল রোগীদের বেশিরভাগকেই স্থানান্তর করতে হয় চট্রগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতাল সহ বিভিন্ন স্থানে। ফলে জরুরী রোগী বহনে এই এ্যাম্বুলেন্সটি এলাকার রোগীদের উপকারে আসবে। জানা যায়, হাসপাতালে আগে পুরনো একটি অ্যাম্বুলেন্স ছিল, যেটি যান্ত্রিক সমস্যার জন্য প্রায়শই রোগী পরিবহনে সমস্যার সৃষ্টি হতো। এ নিয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন পত্রিকা ও গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারিত হয়।

নতুন একটি যোগ হওয়ায় রোগীদের সেবার মান আরও বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করছেন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী মোঃ শাহজালাল, অম্রাচিং মারমা, ঝর্ণা দে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ ওমর ফারুক রনি বলেন, ‘কাপ্তাই ও আশেপাশের মানুষের একমাত্র ভরসার চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। এখানে অ্যাম্বুলেন্সযোগে রোগী পরিবহনে প্রায়শই জটিলতা তৈরি হতো, তা কাটাতে আজকে নতুন একটি যোগ হলো। এতে কাপ্তাই উপজেলার জনগণ নুন্যতম সরকারি ফি প্রদান করে প্রয়োজনীয় এম্বুলেন্সসেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মাসুদ আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘স্বাস্থ্যসেবাকে জনগণের জন্য সহজলভ্য করার জন্য কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। উন্নত মানের এম্বুলেন্স সেবার পাশাপাশি অচিরেই এক্স-রে মেশিন, আল্ট্রাসাউন্ড মেশিনসহ নিত্যনতুন আধুনিক সেবা চালুর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।’

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × five =

Back to top button