ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

কাপ্তাইয়ের সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়নি

টানা বর্ষণে পাহাড় ধ্বসে মারাত্মক বিপর্যয়ের ২০ দিনেও কাপ্তাই উপজেলায় সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়নি। কিছু কিছু স্থানে বিজিবি’র প্রচেষ্টায় হালকা যানবাহন চলাচল করলেও ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ জুন কাপ্তাই সহ রাঙামাটি জেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসে সড়ক যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিছিন্ন হয়ে যায়। এতে কাপ্তাই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সড়ক নিচিহ্নসহ সড়কের ওপর মাটি চাপা পড়ে। এতে জেলা সদর রাঙামাটিসহ চট্টগ্রামের সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়ে। ইতিমধ্যে বিজিবি’র প্রচেষ্টায় উপজেলার বড়ইছড়ি-রাঙামাটি সড়ক, কাপ্তাই-রাঙামাটি নতুন সড়ক, কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়কের কাপ্তাই অংশের বিভিন্ন স্থানে চাপা পড়া মাটি ও ভেঙ্গে যাওয়া সড়কে বালির বস্তা দিয়ে আপাতত হালকা যানবাহন চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে। তবে ভারী যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। এখনও বারঘোনা-মিশন হাসপাতাল সড়কটিতে যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে ওয়া¹া ইউপি চেয়ারম্যান চিরঞ্জিত তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, এ ইউনিয়নের সাপছড়ি, দেবতাছড়ি, বড়ইছড়ি পাড়াসহ বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসে এবং রাস্তা ভেঙ্গে জেলা সদরের সাথে যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিছিন্ন হয়ে যায়। বিজিবি’র প্রচেষ্টায় ধসে পড়া মাটি সরিয়ে ও বালির বস্তা দিয়ে এ সড়কে হালকা যান চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান জানান, কাপ্তাই-রাঙামাটি নতুন সড়কে পাহাড় ধ্বসের কারণে যান চলাচল বন্ধ ছিল। বিজিবি ও নৌ-স্কাউট সদস্যদের নিরলস পরিশ্রমে এ সড়ক দিয়ে বর্তমানে হালকা যান চলাচল করছে। চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী বেবী জানান, বারঘোনা-মিশন হাসপাতাল সড়কের নিচ থেকে মাটি ধসে মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। সহসা এ সড়কে ধারক দেয়াল দিয়ে মাটি ভরাট করা না হলে সড়কের বিশাল অংশজুড়ে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যাবে। এতে মিশন হাসপাতালও হুমকির মধ্যে পড়বে। বর্তমানে সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে তিনি জানান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারিকুল আলম জানান, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সড়কের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কিছু কিছু স্থানে বিজিবি’র প্রচেষ্টায় যান চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে। তবে মাটি সরানোর কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জামের অভাবে সড়কের ওপর ধসে পড়া মাটি সরাতে বিলম্ব হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত সড়কগুলো দ্রুত মেরামতের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগকে জানানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

১টি কমেন্ট

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button
%d bloggers like this: