ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

এলজিইডির সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ বাঘাইছড়িতে !

রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার তালুকদার পাড়া হতে রাবার বাগান পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ কাজে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী। স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশলী অধিদপ্তরের(এলজিইডি) উদ্যোগে এ কাজের বাস্তবায়নে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়েছে ইউটি মং নামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে। প্রায় তিন কোটি ৫৭ লক্ষ টাকার এ কাজটির ঠিকাদার গিয়াস উদ্দিন ।

এলাকাবাসী জানায়, নিম্মমানের পাথর ও বিটুমিন ব্যবহার করে রাস্তা সংস্কারের কাজ করছে ঠিকাদার। এতে সড়কটি বেশি দিন টিকবে না বলেও অভিযোগ এলাকাবাসীর। সরকারি সিডিউল মোতাবেক বাংলাদেশি বিটুমিন ১০০/৮০ ব্যবহারের কথা থাকলেও সেখানে ব্যবহার করা হচ্ছে নিন্মমানের বিটুমিন ৬০/৭০। এছাড়া সংস্কার কাজে পুড়ানো হচ্ছে গাছ। ঠিকমত মিক্সার না করেই কাপের্র্টিং এর কাজ করা হচ্ছে। এতে সারোয়াতলী ও আমতলী ইউনিয়নের যোগাযোগের একমাত্র সড়কপথটি বৃষ্টিতেই কার্পেটিং উঠে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে।

বাঘাইছড়ি পৌরসভার কাউন্সিলর মোঃ নুরুল হক তালুকদার বলেন, সড়কের কাজটির মান ভালো হচ্ছে না। কাজের শুরু থেকেই এই অনিয়মের কথা ঠিকাদারদের জানালেও তারা কর্ণপাত করছে না। তাই তিনি যথাথথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন।

তালুকদার পাড়ার বাসিন্দা অমর বিকাশ চাকমা বলেন, কাজের মান এতই  খারাপ মানের যে বারবার বলা সত্ত্বেও তারা আমাদের কথা পাত্তা দিচ্ছে না। যেখানে বালু দেওয়ার কথা বালু না দিয়ে পাহাড় থেকে ঝুরো মাটি দিচ্ছে কার্পেটিং এর উপরে।

বাজে মানের কাজ ও বিটুমিন ব্যবহার বিষয়ে ঠিকাদার গিয়াস উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে পড়েন এবং বলেন, এগুলো উপজেলা প্রকৌশলী দেখেছেন। এই বিটুমিনগুলো কাজের চাহিদাপত্রে ধরেছে। তাই আমরা এগুলো দিয়ে কাজ করছি। কাজের স্টিমিট জানতে চাইলে প্রতিবেদককে উল্টো প্রশ্ন করে বলেন আপনি ঠিকাদারী করবেন নাকি?

বাঘাইছড়ি উপজেলা এলজিইডি’র প্রকৌশলী মোঃ মনিরুজ্জামান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, লোকবলের অভাবে ঠিকাদাররা দুর্নীতি করার সুযোগ পাচ্ছে। আমি ঠিকাদারকে ডেকে নিন্মমানের বিটুমিনগুলো সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছি। অবৈধ কাঠ পুড়ানো বাতিল করে ঝুট পোড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 1 =

Back to top button