করোনাভাইরাস আপডেটখাগড়াছড়িব্রেকিংলিড

এরশাদ ও পূর্ণা চাকমা : অবাক ভালোবাসায় ‘করোনা জয়’

নারায়নগঞ্জের আদমজি ইউপিজেড এলাকা থেকে ঐ গার্মেন্টসকর্মী স্বস্ত্রীক ১৮ এপ্রিল খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় এসেছিলেন। সেখানে কামুক্কাছড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকা অবস্থায় গত ২২ এপ্রিল চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) এ পাঠানো প্রথম নমুনার রিপোর্ট ২৯এপ্রিল পজেটিভ এসেছিলো। তখন ১মে তাদের (স্বামি ও স্ত্রী) বাসটার্মিনাল সংলগ্ন হোটেল ইউনিটিতে আইসোলেশনে রাখা হয়। একসাথে থেকেই করোনাকে জয় করেছেন স্বামী স্ত্রী। পরষ্পরের প্রতি পূর্ণ সমর্থন আর আস্থাই তাদের করোনা জয়ের মূল কারণ বলে জানিয়েছেন দুজনে।

মনোবল চাঙ্গা রাখার শক্তি ছিলেন এরশাদের স্ত্রী পূর্না চাকমা
পূর্না চাকমা পাহাড়টোয়েন্টিফোরের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় জানান, আদমজীতে স্বামী-স্ত্রী একসাথে কাজ করতেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে একসাথেই ফিরেছিলেন দীঘিনালায়। সমাজের কথা ভেবেই তারা বাড়িতে স্বজন এবং শিশু সন্তানের কাছে না গিয়ে বিদ্যালয়ে কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। সাথে তার বড় ভাই- ভাবিসহ একই পরিবারের আরো ১০জন ছিল। যখন নমুনা পরীক্ষার প্রথম রিপোর্ট পজেটিভ আসে তখন তাঁর স্বামী কিছুটা ঘাবরে গেলেও তিনি সাহস যোগান। তিনি স্বামীকে বলেন, ‘একসাথে রয়েছি, একসাথেই থাকব। বাঁচলেও দুজনেই বাঁচব, মরলেও দুজনেই একসাথে মরব; তাই তোমার কোন চিন্তা করার প্রয়োজন নেই।’ এবং এরশাদ চাকমার শরীরে করোনা ভাইরাসের কোন লক্ষন নেই জানিয়ে তিনি তার স্বামিকে সবসময় অভয় দিয়ে পাশে থেকে সাহস যোগিয়েছেন। সাথে স্বাস্থ্যবিধিগুলোও মেনে চলায় সহযোগিতা করেছেন বলে জানান পূর্না। সর্বশেষ তাদেরই জয় হয়েছে দেখে অনেক খুশি এই জুটি।

করোনা হয়েছিল কি-না বুঝতেই পারেননি এরশাদ
শনিবার আইসোলেশন থেকে বাড়ি ফিরার পর এরশাদ চাকমা জানান, করোনা হয়েছিল কি- না তা তিনি বুঝতেই পারেননি। যদিও প্রথম রিপোর্ট পজেটিভ এসেছিল তখনও তার শরীরে করোনার কোন লক্ষনই টের পাননি। শরীরে কোন অসুস্থতাও অনুভব করেননি। কিন্তু এর পর দ্বিতীয় দফায় রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় ভয় অনেকটা কেটে যায় তাঁর। তৃতীয় দফায়ও রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় যুদ্ধ জয়ীর মতো আনন্দে ভাসতে থাকেন তারা। নারায়গঞ্জ থেকে দীঘিনালায় কোয়ারেন্টিনে, এর পর করোনা পজেটিভ এবং সর্বশেষ দুইবার নেগেটিভ রিপোর্ট আসার পর ছাড়পত্র পেয়ে দীর্ঘদিন পর বাড়িতে স্বজনদের কাছে পৌছে এখন অনেকটা প্রশান্তিতে রয়েছেন এরশাদ-পূর্নার করোনা জয়ী স্বামী-স্ত্রী জুটি।

যা বললেন চিকিৎসক
দীঘিনালা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তনয় তালুকদার জানান, এরশাদ চাকমার নমুনা পরীক্ষার প্রথম রিপোর্ট পজেটিভ আসার পর প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতায় তাদের আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা, তাদের স্বাস্থ্য বিধির মধ্যে রেখে খাবার সরবরাহ করাসহ সকল প্রচেষ্টা অব্যাহত ছিল। সর্বোপরি আক্রান্ত ব্যাক্তিসহ তার সাথে থাকা স্ত্রী এবং বাহিরে থাকা স্বজনদের প্রচেষ্টাও আশানুরূপ ছিল। সব মিলিয়ে একটি নির্দিষ্ট সময় অতিক্রান্ত হওয়ার পর এরশাদ করোনামুক্ত হয়েছেন বলেই ধারণা করা হচ্ছে। যা দীঘিনালাবাসির জন্য ভাল সংবাদ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × one =

Back to top button