ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

এখনো জমে উঠেনি রাঙামাটির গরু বাজার

কোরবানির ঈদ ঘনিয়ে আসলেও এখনো জমজমাট হয়নি রাঙামাটির গরুর হাটগুলো। প্রত্যাশা অনুযায়ী নেই বেচাকেনাও বাজারে ক্রেতার সংখ্যাও কম।

পৌর টার্মিনাল ও রাজবাড়ির গরুর হাটে গিয়ে পাওয়া মিশ্র প্রতিক্রিয়া। অনেকে গরু দেখতে আসছেন। আবার অনেকে গরুর দাম শুনে হতাশা ব্যক্ত করেছেন। তবে খুব একটা বেশি গরু বিক্রি হচ্ছে না হাটগুলোতে। হাটে গরু উঠলেও ক্রেতা খুব একটা নাই। যারাও গরু কিনতে এসেছেনে তারাও অভিযোগ করছেন কিছু গরু ব্যবসায়ির কাছে গোটা হাট জিম্মি হয়ে রয়েছে। সিন্ডিকেট করে গরুর দাম বাড়িয়ে বলা হচ্ছে এবং দাম কমাচ্ছে না। অভিযোগ আছে আগের বছরের তুলনায় এবারের দাম অনেক বেশির। ব্যবসায়ীরা আশা করছেন ঈদের দিন যত কাছে আসবে বিক্রি তত বাড়বে।

অন্যদিকে দেখা যায় রাঙামাটির বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা গরু সরাসরি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে চট্টগ্রাম কিংবা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। অনেকে এমন অবাধে রাঙামাটির বাইরে গরু নিয়ে যাওয়াকে দাম বাড়ার কারণ মনে করছেন। শেষ সময়ে গরুর দাম কমাতে বাধ্য হবেন ব্যবসায়ীরা তেমনটাও মনে করছেন অনেক ক্রেতারা।

ক্রেতা আহমেদ শফি বলেন, গরুর দাম অনেক বেশি যে দাম চাচ্ছে তাতে গরু কেনা অনেক কঠিন। আগের বছরের তুলনায় অনেক বেশি। রাজিব আহমেদ বলেন, পুরো গরুর বাজারটা নিয়ন্ত্রণ করছে কিছু ব্যাপারী। যারা জিম্মি করে রেখেছে গরুর বাজারটা। অন্যদিকে যেভাবে রাঙামাটির গরু ট্রাকে করে বাইরে চলে যায় তার মধ্য দিয়ে কৃত্রিম সংকট তৈরি করা হয়। আরেক ক্রেতা মো: মুন্না ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, পুলিশ অতিরিক্ত দাম বলার কারণে যদি কাউকে গ্রেপ্তার করে তাহলে গরুর হাটের গরু ব্যবসায়ী সবাই গ্রেপ্তার হবে। প্রত্যকে গরুর অতিরিক্ত দাম হাকাচ্ছেন। গরু ব্যবসায়ী আবু তালেব বলেন, আমাদের গরু কিনতে হয়েছে বেশি দাম দিয়ে, তাই আমাদেরকেও বেশি দামে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি।

গরুর হাটের হাসিল আদায়কারীর কাজে নিয়োজিত থাকা মোকাদ্দেম সাঈফ বলেন, এখনো গরু বিক্রি তেমন হয় নাই আরো কয়েকদিন সময় আছে হয়তো গরু বিক্রি বাড়বে।

গরু স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য হাটে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মেডিকেল টিম কাজ করছে।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button