করোনাভাইরাস আপডেটব্রেকিংরাঙামাটিলিড

এখনই খুলছে না রাঙামাটির কোন পর্যটন স্পট

রবিবার থেকে চালু হচ্ছে আবাসিক হোটেলগুলো

কোডিভ-১৯ করোনা ভাইরাসের কারণে সারাদেশের মতো রাঙামাটিতে জারি করা পর্যটন স্পটের উপর নিষেধাজ্ঞা এখনই তুলে নেয়া হচ্ছে না, আরো অন্তত কিছুদিন বলবৎ থাকছে এই নিষেধ।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) উত্তম কুমার দাশ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ‘পর্যটন স্পটের উপর নিষেধাজ্ঞা এখনো জারি রয়েছে, পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত কোন পর্যটন স্পট খোলা হবে না। তবে হোটেল খোলা হবে এবং তা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুলতে ও চালাতে হবে।’

ফলে টানা দুইমাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকার পর রবিবার থেকে খোলা হচ্ছে রাঙামাটির ৫১টি আবাসিক হোটেল। শনিবার বিকালে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন সূত্র নিষেধাজ্ঞা বলবৎ রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এর আগে গত ১৮ মার্চ রাতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে রাঙামাটির পর্যটন স্পটগুলোর উপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলো রাঙামাটি জেলা প্রশাসন। তার পরদিন থেকেই রাঙামাটির সকল আবাসিক হোটেল মোটেলও বন্ধ করে দেয়া হয়। রাঙামাটিতে অবস্থান করা পর্যটকদের পরামর্শ দেয়া হয় শহর ছাড়ার।

এদিকে জেলা প্রশাসন থেকে নির্দেশনা জানার পর, শনিবার সকাল থেকেই রাঙামাটি শহরের আবাসিক হোটেলগুলো পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ শুরু করেছে হোটেল মালিকরা। শহরের প্রায় সব হোটেলেই এই চিত্র দেখা গেছে। তবে পর্যটন কর্পোরেশনের মোটেলটি এখনো খোলার সিদ্ধান্ত না হলেও, গণপরিবহন চালু হলে বুকিং পেলে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে কথা বলে সুরক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করে সেটিও খোলার ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে পর্যটন কর্পোরেশন ।

রাঙামাটি আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মঈনউদ্দিন সেমিল জানিয়েছেন, আমাদের সংগঠনের আওতায় থাকা ৫১টি আবাসিক হোটেল রবিবার সকাল থেকে খোলা হবে। তবে আগের মতো স্বাভাবিক ভাবে খোলা হবে না, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে খোলা হবে। স্বাভাবিকের মত হোটেল কর্মচারিদেরও কাজে নিয়োগ দেয়া হবে না, প্রাথমিক অবস্থায় স্বল্পসংখ্যক কর্মচারি কাজে যোগদান করবে। আমরা সিঙ্গেল রুমে একজনের বেশি রাখব না। বিশেষ করে প্রাধান্য দেয়া হবে ডাবল রুমগুলোকে।

রাঙামাটি পর্যটন কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপক সৃজন বিকাশ বড়ুয়া শনিবার বিকালে জানান, আমাদের কাছে আপাতত কোন বুকিং নাই। আর গণপরিবহন চালু হলে এবং আমাদের কাছে বুকিং আসলে, আমরা জেলা প্রশাসনের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তারপরও সব স্টাফদের কর্মস্থলে এনে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করে সব ইউনিট চালু করতে দুই একদিন সময় প্রয়োজন।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button