রাঙামাটি

এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বহু অভিযোগ!

রাঙামাটির কাউখালীতে

দুর্নীতি, ধর্ষণ, অনিয়ম, আত্মসাৎ, চাঁদা আদায়সহ বিভিন্ন অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগ এনে রাঙামাটির কাউখালী উপজেলায় এক ইউপি সদস্যদের বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে স্থানীয় জনসাধারণ। গত ২৭ আগস্ট বৃহস্পতিবার ১নং ওয়ার্ডের ধুপছড়ি পাড়ার ১৬ জনের যৌথ স্বাক্ষরে এ অভিযোগ করা হয়। এতসব অভিযোগ উপজেলার ফটিকছড়ি ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য চাথুইমং মারমা (সুমন) এর বিরুদ্ধে। এদিকে অভিযোগ পেয়ে ঘটনার সত্যতা যাচাই করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে সমাজসেবা কর্মকর্তাকে দায়িত্ব নিয়েছেন ইউএনও।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, করোনা দুর্যোগকালীন সময়ে সরকার কর্তৃক দুস্থ ও গরীবদের মাঝে বিতরণের জন্য বরাদ্দকৃত তার আপনজনদের মাঝে বিতরণ, প্রকৃত মাতৃত্ব ভাতা পাওয়ার যোগ্য ব্যক্তিদের না দিয়ে তার আত্মীয়দের ভাতা পাওয়ার ব্যবস্থা, গত তিন বছর আগে এডিপি প্রকল্প হতে কৃষকেদের জন্য দেওয়া দুইটি পাওয়ার টিলার ও ৩টি স্যালোমেশিন বিক্রি করে টাকা আত্মসাৎ, জন্ম নিবন্ধন করতে এক থেকে তিন হাজার পর্যন্ত টাকা নেওয়া। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতাসহ সরকারী বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দিতে টাকা নেওয়া, ভিজিএফ এর চাল অন্য ইউনিয়নের আত্মীয়দের মাঝে বিতরণ, এক জনের নামে সোলার এনে অন্যত্র বিক্রি, এলাকার নারীদের জোর পূর্বক তুলে নিয়ে ধর্ষণ করাসহ বিভিন্ন বিষয়ে অভিযোগ এনে জরুরী ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানানো হয়।

এতসব অভিযোগ যার বিরুদ্ধে সেই ইউপি সদস্য চাইথুইমং মারমা (সুমন) এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নির্বাচনে হেরে গিয়ে বিরোধী পক্ষ ছয়কে নয় বানিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমার সম্মানহানীর জন্য এসব করছে। আমি নিজেও আটদিন ধরে তাদের ভয়ে পলাতক। নারী গঠিত বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন দেশ কি এখন এমন পর্যায়ে চলে গেছে নাকি যে আমি যা নয় তা করতে পারবো। এগুলা সব আমার সম্মানহানীর জন্য করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে কাউখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শতরূপা তালুকদার জানিয়েছেন, অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে না পাওয়া পর্যন্ত এবিষয়ে মন্তব্য করা যাবেনা।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty + 4 =

Back to top button