খাগড়াছড়িব্রেকিংলিড

উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমার বর্বরতা !

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এক নৈশ প্রহরীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় পেটালেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা। বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলা পরিষদ এলাকার বাসায় ঢুকে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা, পেরাছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তপন বিকাশ ত্রিপুরাসহ ৪-৫জন মিলে নৈশ প্রহরী ধন বিকাশ ত্রিপুরার ওপর হামলা করে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। চেয়ারম্যানের আক্রোশ থেকে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করলেও এঘটনায় এখনো পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি বলে জানিয়েছেন সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান।
এই চঞ্চুমনি চাকমার বিরুদ্ধে খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজে পড়ার সময় সনামধ্যন্য শিক্ষক খলিলুর রহমানসহ নিজের বয়োজেষ্ঠ্য স্বজনদের শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে।

ব্যক্তিগত জীবনে অত্যন্ত সাম্প্রদায়িক চঞ্চুমনি চাকমার বিরুদ্ধে ২০১০ সালে খাগড়াছড়ি জেলাশহরে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক সংঘাতে উস্কানি দেয়ার অভিযোগ উঠেছিল।

শুক্রবার বিকেলে ধন বিকাশ ত্রিপুরা সাংবাদিকদের জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা, পেরাছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তপন বিকাশ ত্রিপুরাসহ ৪-৫ জন বাসায় ঢুকে আমার ওপর হামলা করে। চঞ্চুমনি প্রথমে আমার ঘাড় ধরে ধাক্কা দিয়ে ফেলে কাঠের টুকরো নিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। তপনসহ অন্যান্যরাও আমার ওপর কাঠ ও হাত পা দিয়ে হামলা করে। মারধর করতে করতে আমাকে উপজেলা মাঠে নিয়ে আসলে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মীর মোশারফ হোসেন জানান, ধন বিকাশ ত্রিপুরার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শক্ত কোন বস্তু দিয়ে তার ওপর আঘাত করায় শরীরের বিভিন্ন স্থান থেতলে গেছে। তিনি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা মুঠোফোনে জানান, ধন বিকাশ ত্রিপুরা অন্যায় করায় তাকে মারধর করেছি। তিনি কি করেছেন জানতে চাইলে চঞ্চুমনি চাকমা ধন বিকাশের কাছে গিয়ে জানতে পরামর্শ দেন।

খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান জানান, পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এঘটনায় কেউ অভিযোগ করলে পুলিশ পরবর্তী ব্যবস্থা নিবে।
উপজেলা পরেষদের আবাসিক বাসিন্দারা জানান, হামলাকারীদের কয়েকজন প্রায়ই জোরপূর্বক ধন বিকাশের বাসায় মদের আসর বসাতে চাইতো। বিষয়টি ধন বিকাশ সহজে মানতে চাইতো না। ঘটনার দিনও হামলাকারীরা একই আব্দার করেছিলো। কিন্তু ধন বিকাশ রাজী না হওয়ায় তার ওপর হামলা চালায়।
সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এলিশ শরমীন জানান, তিনি দু:খজনক এই ঘটনার খবর জেনেছেন। একজন জনপ্রতিনিধি এমনটি করবেন তা সমর্থন যোগ্য নয়। তিনি বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয়কে জানিয়েছেন বলেও দাবী করেন।

জেলা প্রশাসক মো: রাশেদুল ইসলাম জানান, নৈশপ্রহরী ধন বিকাশ ত্রিপুরার ওপর হামলা হয়েছে বলে শুনেছি। সে সুস্থ হওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, পাহাড়ের আঞ্চলিক অনিবন্ধিত সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর সমর্থন নিয়ে ৪র্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয় চঞ্চুমনি চাকমা।
নির্বাচিত হবার পর থেকে বেপরোয়া এই জনপ্রতিনিধি ইউপিডিএফ আশ্রয় ছেড়ে ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ নেতাদের সাথে ঘাঁটছড়া বাঁধেন।
খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার সাথে সখ্যতার সুযোগে চঞ্চুমনি চাকমা আওয়ামীলগের কেউ না হয়েও দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন এবং ক্ষমতার সকল ভাগ-বাটোয়ারা পাচ্ছেন বলে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের আক্ষেপ রয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button