ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

ঈদে পর্যটকমুখর রাঙামাটির পর্যটন স্পট

ঈদের ছুটিতে পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকদের ভিড় বেড়েছে। এদিকে পর্যটক মুখর হয়ে উঠেছে রাঙামাটি পর্যটনের ঝুলন্ত সেতুসহ পলওয়েল পার্ক, ডিসি বাংলো, আসামবস্তি ব্রিজ ও বোটানিক্যাল গার্ডেন পর্যটন স্পটগুলো।

রাঙামাটির সিম্বল খ্যাত পর্যটনের ঝুলন্ত সেতুটি টানা বর্ষণের ফলে পানিতে ডুবে যায়। কিন্তু ঈদের আগ মুহূর্তে পানি কমে যাওয়ায় সেতুটি খুলে দেয় পর্যটন কর্তৃপক্ষ। ঈদের লম্বা ছুটিতে পর্যটক মুখর হয়ে উঠেছে পর্যটন। পর্যটকদের সামলাতে ব্যস্ত সময় পার করছে পর্যটনে নিয়োজিত কর্মীরা।

রাঙামাটির পর্যটনের ঝুলন্ত সেতু, পলওয়েল পার্ক, ডিসি বাংলো পার্ক, বোটানিক্যাল গার্ডেন, আসামবস্তি ব্রিজ গিয়ে দেখে যায়, প্রতিটি স্পটেই অসংখ্য পর্যটকের উপস্থিতি। বাইরে থেকে আসা পর্যটকরা যেমন আছে, তেমন স্থানীয়রা পরিবার নিয়ে ভিড় করছেন পর্যটন স্পটগুলোতে। পর্যটন ও পলওয়েলে টিকিট কাউন্টারে খুবই ব্যস্ত সময় পার করছে টিকিট কাউন্টারে থাকা কর্মীরা।

এমন পর্যটক উপস্থিতে খুবই খুশি পর্যটন ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্টরা। এতে যেমন পর্যটনের লাভ হচ্ছে তেমন পর্যটকদের ওপর ভিত্তি করে গড়ে উঠা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িতরাও লাভবান হবে।

ঢাকা থেকে বেড়াতে আসা হামিদুল হক বলেন, ঈদের বন্ধে বেড়াতে এসেছি খুব ভাল লাগছে এখানকার সব কিছু। ব্যস্ত শহর ছেড়ে নিরিবিলি সময় কাটাতে রাঙামাটি অনেক ভাল একটা জায়গা। স্থানীয় পর্যটন নিরন্তর চাকমা বলেন, আমরা রাঙমাটিতে থাকলেও অনেক সময় বেড়াতে বের হতে পারি না সময়ের অভাবে। ঈদের বন্ধে সবাই মিলে বেড়াতে আসছি পরিবার পরিজন নিয়ে।

বনানী টেক্সটাইল পর্যটন শাখার ব্যবস্থাপক ইমদাদ বলেন, ছুটিতে পর্যটকের সংখ্যা অনেক বেড়েছে, তাতে আমরাও খুশি। যদিও খুব বেশি বিক্রি হচ্ছে না, তবে পর্যটক আসলে বিক্রি হবেই।

স্থানীয় দোকানদার শাহজালাল বলেন, এখন লোকজন আসতেছে আমাদেরও কিছুটা বিক্রি বেড়েছে এতে আমরা অনেক খুশি।

পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্স রাঙামাটির ব্যবস্থাপক সৃজন বিকাশ বড়–য়া বলেন, ঈদের বন্ধে আমাদের এখানে পর্যটকের সংখ্যা অনেক বেড়েছে, এ সময়ে আমরা বিভিন্ন ধরনের ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকি।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button