রাঙামাটি

‘ইঁদুরে প্রতি বছর দেশে ১২-১৫ লক্ষ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য নষ্ট হচ্ছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
‘বছরে ইঁদুর খাচ্ছে লক্ষ লক্ষ টন, খাদ্য ঘাটতি রুখতে দরকার ইঁদুর নিয়ন্ত্রণ ’এই স্লোগানকে সামনে রেখে রাঙামাটিতে জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা এর আয়োজনে রাঙামাটি জেলাপ্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান-২০২২ উদ্বোধন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাঙামাটি জেলার উপরিচালক কৃষিবিদ তপন কুমার পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলার জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মো. সাইফুল ইসলাম, আঞ্চলিক কৃষি তথ্য অফিসার কৃষিবিদ প্রসেনজিৎ মিস্ত্রী ও অন্যান্যরা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাঙামাটি জেলার অতিরিক্ত উপপরিচালক কৃষিবিদ আপ্রু মারমা। এসময় তিনি ইঁদুরের ক্ষতির ধরন, জীবনচক্র ও দমন কৌশল বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন। তিনি বলেন কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে প্রতি বছর আমন মৌসুমে মাস ব্যাপী জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান পরিচালিত হয়ে থাকে এবং ১৯৮৩ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে এই কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। এবারও রাঙামাটিতে ইঁদুর নিধন অভিযানে মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ইঁদুর আমাদের একটি গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় সমস্যা। সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি ইঁদুর দমনের লাগসই প্রযুক্তি সমূহ কৃষিকর্মীগণের মাধ্যমে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর ব্যবস্থা করতে হবে। কৃষকদের এ বিষয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। পার্বত্য এলাকায় ইঁদুরের প্রাদূর্ভাব তুলনামূলকভাবে ব্যাপক। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের পাশাপাশি সর্বস্তরের জনগণ তথা কৃষক কৃষাণী, ছাত্র ছাত্রী, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাসমূহের জনবলকে সম্পৃক্ত করে এই জাতীয় শত্রু নিধনে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে কৃষিবিদ তপন কুমার পাল বলেন, ইঁদুরের কারণে প্রতি বছর বাংলাদেশে ১২-১৫ লক্ষ মে. টন খাদ্যশস্য নষ্ট হয়ে থাকে। সুনির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে আমন ফসলে ৫-৭%, গমে ৮-১২%, গোল আলুতে ৫-৭%, আনারসে ৬-৯%, তরমুজে ৫-৭% ক্ষতি করে থাকে। এছাড়া সেচের পানির ৭-১০% অপচয় করে থাকে ইঁদুর। নিজের শরীরের ওজনের ১০ ভাগের ১ ভাগ খাবার গ্রহণ করে এবং ৭/৮ গুণ নষ্ট করে থাকে। তাই সমাজে এ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিসহ সকলকে ইদুর দমনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করতে হবে। অনুষ্ঠানে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাঙামাটি জেলার পক্ষ থেকে আগত কৃষক কৃষাণীদে মাঝে ইঁদুর দমনের বিভিন্ন উপকরণ বিতরন করা হয়। তাছাড়া অনুষ্ঠানের শুরুতে কৃষি তথ্য সার্ভিস, রাঙামাটির উদ্যোগে ইঁদুর নিধন বিষয়ক ডকুড্রামা ‘সর্বনাশা ইদুর’ প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে রাঙামাটি জেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ, কৃষক কৃষানী, জনপ্রতিনিধি, প্রিন্ট ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এবং অন্যান্য সুধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven − seven =

Back to top button