হলফনামায় দেয়া তথ্যে

আয় বেড়েছে দীপংকরের

সাবেক পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারের সব ক্ষেত্রেই আয় বেড়েছে। দশম সংসদ নির্বাচনের হলফনামায় তাঁর ব্যবসা থেকে বাৎসরিক আয় ৪৪ লাখ টাকা দেখানো হয়েছিলো, কিন্তু বর্তমানে সেই আয় বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ ৮৪ লক্ষ টাকা হয়েছে। এছাড়া গতবার মোটরগাড়ি না থাকলেও এবার মোটরগাড়ির দাম ৬৩ লক্ষ ৪৮ হাজার ১৪৮ টাকা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া শেয়ার, বন্ড, সঞ্চয় স্কিমসহ স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি বেড়েছে দীপংকর তালুকদারের। দশ বছর আগে তাঁর যে ২৫ ভরি স্বর্ণ ছিলো, এখনো তাঁর কাছে সেই স্বর্ণটাই রয়েছে।

নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামা সূত্রে জানা যায়, নবম জাতীয় সংসদে দীপংকর তালুকদারের শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএ অনার্স (ইংরেজি) লেখা হয়েছে। তাঁর বাৎসরিক আয়ের মধ্যে বাড়ি ভাড়া থেকে ৩ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা, ব্যবসা থেকে ৩ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা। অস্থাবর সম্পত্তির মধ্যে নগদ টাকা ৫০ হাজার, ব্যাংকে ৩ হাজার তিনশত আট টাকা, স্ত্রীর নামে ৪৯ হাজার দুইশত তিনটাকা। স্ত্রীর কাছে স্বর্ণের পরিমাণ ২৫ ভরি (দানকৃত)। ইলেকট্রনিক পণ্য মোট ৩ লক্ষ ১৩ হাজার ৭০০ টাকা। আসবাবপত্র ১ লক্ষ ৬ হাজার টাকা। স্থাবর সম্পদি হলো ৫ তলা বিশিষ্ট দালান যার মূল্য ৮৯ লক্ষ ৩২ হাজার ২৩৩ টাকা, বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যাস কর্পোরেশন হইতে বাড়ী নির্মানের জন্য ব্যক্তিগত ঋণ ৯ লক্ষ ৭ হাজার ৫০৪ টাকা।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সব স্তরে সম্পদ বেড়েছে। যেমন বাৎসরিক আয় বাড়ি ভাড়া বাবদ ৪ লক্ষ ২১ হাজার ৫৭৫ টাকা। ব্যবসায় ৪৪ লক্ষ ৭৯ হাজার ৯৭৫ টাকা, শেয়ার ও সঞ্চয় ৬৮ হাজার ৪৩৭ টাকা, পারিবারিক সঞ্চয় ৩ হাজার ৮৬৮ টাকা। পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী থাকাকালীন সম্মানী ভাতা ৫ লক্ষ ৭৯ হাজার ৬০০ টাকা।

অস্থাবর সম্পত্তি হলো, নগদ ১৮ লক্ষ ১৪ হাজার ৪৫ টাকা, স্ত্রীর নামে নগদ ৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ৭৯ টাকা, ব্যাংকে জমাকৃত নিজের নামে ১৪ লক্ষ ৫৫ হাজার ২০৬ টাকা, স্ত্রীর নামে ১০ লক্ষ ৬৮ হাজার, ৭২ টাকা, পারিবারিক সম্পত্তি ৩২ লক্ষ ৬৬ হাজার ২২ টাকা। শেয়ার (১) টেলিপ্লাস শেয়ার ৩ হাজার টি ৩ লক্ষ টাকা, কল্পতরু হলিডে ইন শেয়ার ২ হাজার টি ২ লক্ষ টাকা। স্ত্রীর নামে শেয়ার কল্পতরু হলিডে ইন শেয়ার ২ হাজার টি ২ লক্ষ টাকা। সঞ্চয়স্কীম ১৪ লক্ষ ৬২ হাজার ৫৭৮ টাকা, আলিকো ইন্সুরেন্স ৪৮ লক্ষ টাকা। স্ত্রীর নামে সঞ্চয়স্কীম ১৩ লক্ষ ৫০ হাজার ৯৭৭ টাকা এবং আলিকো ইন্সুরেন্স ৪৫ লক্ষ ৬৬ হাজার ৬৭ টাকা, পারিবারিক সঞ্চয়স্কীম ৪৯ হাজার ৫২০ টাকা। স্বর্ণ ২৫ ভরি (দানকৃত)। ইলেকট্রনিক পণ্য মোট ৩ লক্ষ ১৩ হাজার ৭০০ টাকা। আসবাবপত্র মোট মূল্য ১ লক্ষ ১৬ হাজার টাকা।

স্থাবর সম্পত্তি হলো অকৃষি জমি পূর্বাচল নতুন শহর ঢাকায় ১০ কাঠা জমি, যার মূল্য ৩১ লক্ষ ৩৯ হাজার ৯৫৮ টাকা। দালান ৫ তলা বিশিষ্ট দালান যার মূল্য ৮৯ লক্ষ ৩২ হাজার ২৩৩ টাকা, শেয়ার বিনিয়োগ, সঞ্চয়স্কীম ও আলিকো ইন্সুরেন্সে ২ কোটি ৮৭ লক্ষ ৮২ টাকা। কল্পতরু হলিডে ইন লিমিটেড প্রকল্পের বিপরীতি অংশদারী ঋণ ৯৩ লক্ষ টাকা। ২০১২-২০১৩ আয়কর সনদপত্রের তথ্যানুযায়ী ৭ লক্ষ ৮৭ হাজার ৪০০ টাকা বাৎসরিক আয়।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রিটানিং অফিসারের কাছে হলফনামা তথ্য অনুযায়ী বাৎসরিক আয় বাড়িভাড়া থেকে ৫ লক্ষ ২ হাজার ৪০০ টাকা। ব্যবসা থেকে আয় ৮৪ লক্ষ ১৩ হাজার ১৪৫ টাকা। সঞ্চয় ৮ লক্ষ ৯৪ হাজার ৭৩২ টাকা। অস্থাবর সম্পত্তি হলো, নগদ টাকা ৫৭ লক্ষ ৭২ হাজার ৭৯৬ টাকা, স্ত্রীর নামে ১০ লক্ষ ২ হাজার ৯০ টাকা। ব্যাংকে জমাকৃত টাকা নিজের নামে ৬ লক্ষ ৪ হাজার ৮৪৯ টাকা, স্ত্রীর নামে ১৬ লক্ষ ৬ হাজার ৪৮৬ টাকা। বন্ড, শেয়ার নিজ নামে ২ লক্ষ টাকা ও স্ত্রীর নামে ২ লক্ষ টাকা, সঞ্চয়স্কীম ১ কোটি ৬১ লক্ষ ৭৪ হাজার ২৬ টাকা, স্ত্রীর নামে ২০ লক্ষ টাকা। মটরগাড়ীর দাম ৬৩ লক্ষ ৪৮ হাজার ১৪৮ টাকা। স্বর্ণ ২৫ ভরি (দানকৃত)। ইলেকট্রনিক পণ্য যার মোট মূল্য ৫ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা, আসবাব পত্র যার মোট মূল্য ৪ লক্ষ ১৬ হাজার টাকা।

স্থাবর সম্পত্তি হলো অকৃষি জমি, (১) পূর্বাচল নিউ টাউন, রাজউক, গাজীপুরে ৯ কাঠা, ১৫ ছটাক ৩৮ বর্গফুট, যার বাজার মূল্য ৩৪ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকা। (২) রেসিডেনসিয়াল এরিয়া, হাটহাজারীতে ৫ কাঠা জমি, যার মূল্য ৩৩ লক্ষ টাকা। স্ত্রীর নামে (১) পিতার নিকট হতে দানসূত্রে রাঙামাটিতে রাঙ্গাপানি ছড়ায় ৫ একর জমি ও ভাইয়ের কাছ থেকে দানসূত্রে ৩৪২৮.২০ বর্গফুটের জমি। হোল্ডিং নং-৩৫১ এর মূলে ৫ তলা বিশিষ্ট দালান যার মূল্য ৮৮ লক্ষ ৩২ হাজার ২৩৩ টাকা, স্ত্রীর নামে নাভানা নিউ বারী প্লেস, সোবাহানবাগে একটি ফ্ল্যাট, ফ্ল্যাট নং-সি- ১০, ১১ তম তলায়। যার বাজার মূল্য ৮০লক্ষ ১২ হাজার টাকা। ঋণ কল্পতরু হলিডে ইন লিমিটেড প্রকল্পের বিপরীতে অংশীদারী দায় ১ কোটি ২৪ লক্ষ ৪১ হাজার ৭৯২টাকা।

আরো দেখুন

বাঘাইছড়িতে সংঘাতে আহত ১৭

রাঙামাটির দুর্গম বাঘাইছড়ি উপজেলায় আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মধ্যে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

13 + 10 =