খোলা জানালারাঙামাটিলিড

আমি আর পাহাড় টোয়েন্টিফোর

বর্তমানে আমি আর পাহাড় টোয়েন্টিফোর শব্দ দুটি কেমন জানি আত্মীয়র মত হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এই শব্দটির সম্পর্ক তৈরি হতে থাকে ২০১৪সালের শেষের দিকে কোন এক সময় থেকে। আমার লেখালেখির ইচ্ছা ছোটকাল থেকে কিন্তু প্রকাশের মাধ্যাম খুব কমই পেয়েছি। একদিন চায়ের আডায় আইভি তে শংকর কাকার সাথে কথার এক ফাঁকে তিনি বলেন, তুমি চাইলে পাহাড় টোয়েন্টিফোরে লিখতে পার। আমি বললাম আমি তো নিউজ তেমন একটা করতে পারি না। আপনি শিখিয়ে দিবেন। তিনি বলেন, তুমি নিউজ কর, আমাকে মেইলে পাঠাও আমি দেখব। এক এক করে ৫-৭টা নিউজ পাঠালাম, একদিন তিনি ভাব নিয়ে বললেন আমিতো নিউজ দেখার সময় পাইনি। তুমি পাঠাও না, তখন শুধু কাকার মেইলে নিউজ পাঠানোর অনুমতি পাহাড়ের মেইলে না।

২০১৪ সালের কালিপূজার সকাল আটায় কাকা ফোন দিয়ে বলে নয়টায় রাঙামাটি পাবলিক কলেজে আইসিটি ক্রাইম বিষক এক সেমিনারে হবে সেটি তোমাকে কাভার করতে হবে। সেটি কাভার করলাম নিউজও করলাম আর সে নিউজটি একটি লাইন পরির্তন করে প্রকাশ করা হলো। আর তখন থেকে আমার নিউজ করা শুরু পাহাড় টোয়েন্টিফোরে।

তখনও পরিচয় ছিল না প্রিয় সম্পাদক ফজলে এলাহী ভাইটির সাথে। কয়েকদিন পর শহরের এক মেলায় শংকর কাকা ডাক দিল গেলাম বলে ভাইয়া ও মিশু আর তখন বুঝলাম সামনে দাঁড়ানো টি শার্ট পরা সামান্য কালো লোকটায় বুঝি সম্পাদক। কথাটাও ছিল খুব ফ্রি মেজাজের। প্রথম দেখাতেই শুনিয়ে দিল, নিউজ শিখতে হলে পিটা খেতে হবে। অফিসে আসিও কথা হবে। অফিসে না আসলে কেমনে হবে।

প্রায় সময় তাৎক্ষণিক ফোন, এখনই এই জায়গায় যেতে হবে সেখানে ঐ সংগঠনের অনুষ্ঠান হচ্ছে বা ঐ জায়গায় কিছু সমস্যা হচ্ছে মনে হয় ভাই একটু দেখতো। তেমনি ফোন আসতো কখনো কাকা কখনো এলাহী ভাইয়ার কাজ থেকে।

এভাবে চলতে চলতে পার হল ৪টি বছর। এই সময়ে ভাইয়া অফিসে প্রায় সময় বকা দিত, তুই অলস বলে বলে। ভাইয়ার সাথে কাজ করে নিউজ করা যেমন শিখেছি, তেমনি শিখেছি কিভাবে সংগঠনিক ব্যাক্তি হতে হয়।

সমাজিক দৃষ্টি ভঙ্গি থেকে পাহাড়২৪ অনলাইন পত্রিকাটি যেমন তাৎক্ষণিক খবর প্রকাশসহ অন্যায়ের বিরুদ্ধে খবর প্রকাশে সব সময় অবিচল থাকায় সামাজিক সুদৃষ্টির অধিকারী। তার সাথে সাথে এই পত্রিকায় কাজ করার সুবাদে আমি নিজেও সামাজিক সুদৃষ্টির অধিকারী হচ্ছি সব সময়। যার ফল কোন অফিসে গেলে বা রাস্তায় হাঁটা, কোন অনুষ্ঠানে যোগ দিলে হাড়ে হাড়ে টের পাই।

এই পথচলায় প্রিয় এলাহী ভাইয়া, শংকর কাকা ছাড়াও প্রায় সময় সহযোগির হাত বাড়িয়ে দেয় সবুজ ভাইয়া, ইয়াছিন ভাইয়া, জিয়া ভাই, সাইফুলসহ পাহাড় টোয়ান্টিফোর পরিবারের সকল সদস্য।

অন্যায় বিরুদ্ধে, সামাজিক সমস্যা, আনন্দ ঘন মূহুর্তের সব খবর নিয়ে পাহাড় পরিবারের সাথে আমিও পার করতে চাই যুগ যুগ………….

এই বিভাগের আরো সংবাদ

১টি কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × five =

Back to top button