নীড় পাতা / ব্রেকিং / আবারো উৎপাদন বন্ধ কেপিএম’র
parbatyachattagram

আবারো উৎপাদন বন্ধ কেপিএম’র

মিটারিং পার্টস নষ্ট হয়ে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে অবস্থিত কর্ণফুলি পেপার মিল (কেপিএম)’র উৎপাদন বন্ধ রয়েছে রবিবার দুপুর থেকে। গ্যাস সররাহের কারণে উৎপাদন বন্ধ থাকায় কেপিএম’কে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, হাইকোর্ট সহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে কাগজের স্বাভাবিক প্রয়োজন মেটাতে বেগ পেতে হবে বলে মনে করছেন কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকাই কেপিএম’র আবাসিক এলাকার বাসিন্ধারাও পরেছেন বিপাকে।
কেপিএম’র উৎপাদন বন্ধ হওয়ায় অবসর সময় পার করছেন স্থায়ী অস্থায়ী শ্রমিকরা। প্রতিদিন ১৫-২০লক্ষ টাকা আর্থিক ক্ষতি গুনতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটিকে। আবাসিক এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধের কারণে রান্না কাজে হিমসিম খেলে হচ্ছে বসবাসকারীদের। তাদের মধ্যে কেও কেও গ্যাসের সিলিন্ডার কিনলেও অনেকেরই আপাতত খাওয়া দাওয়ার কাজ করতে হচ্ছে হোটেলে। বর্তমানে কেপিএম’র সাড়ে আটশত স্থায়ী অস্থায়ী শ্রমিক, কর্মচারী, কর্মকর্তা কর্মরত আছেন। এতে প্রতিদিন ২০টন কাগজ উৎপাদন হয়।
কেপিএম’র একটি সূত্র জানিয়েছে, রবিবার দুপুর ১টা ১৫মিনিটে হঠ্যাৎ গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে কাগজ উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায় কেপিএম’র । পরবর্তীতে চট্রগ্রাম গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড এর একটি টিম কেপিএম গ্যাস সরবরাহ লাইন পরিদর্শন করে, সরবরাহ লাইনের একটি পার্টস নষ্ট হয়ে গেছে এবং সেটি তারা এনে লাগিয়ে দিব বলে তারা চলে যায়। তারা এখনো পার্টসটি খুজছেন বলে জানা গেছে।
কর্ণফূলি পেপার মিল কেপিএম’র ব্যবস্থাপক ড. এম এম এ কাদের জানান, রবিবার দুপুরে কেপিএম’র হঠাৎ গ্যাস সরবরাহ লাইনের মিটারের একটি পার্টস নষ্ট হয়ে গ্যাস সরবরাহ বন্ধের কারণে উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। আমরা গ্যাস সরবাহ প্রতিষ্ঠান কেডিজিসিএল সাথে যোগাযোগ করেছি, তারা একটি পরিদর্শক টিমও পাঠিয়েছে। কিন্তু পার্টসটি তারা এখনো লাগিয়ে দিয়ে যাননি। আমরা বাইরের কাওকে এনে ঠিক করাবো কিনা তা জানতে চাইলেও সরবরাহ প্রতিষ্ঠানটি তারা ছাড়া কেও ঠিক করতে পারবে না বলায়, আমরা তারাই পার্টসটি লাগানোর অপেক্ষায় আছি।
তিনি আরো জানান, বছরের প্রথমদিনে প্রধানমন্ত্রী যে বই শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে তুলে দেন সে বইয়ের কাগজ আমরা সরবরাহ করি। এছাড়া হাইকোর্টসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে আমরা কাগজ সরবরাহ করে থাকি, উৎপাদন বন্ধ থাকায় সে কাগজ সরবরাহে আমাদের বেশ বেগ পেতে হবে। পাশ^াপাশি প্রতিদিন প্রচুর আর্থিক ক্ষতিও গুণতে হচ্ছে।
প্রসঙ্গত, গত ২ জুলাই ট্রান্সফরমার নষ্টের হয়ে সপ্তাহ খানেক উৎপাদন বন্ধের কারণে কোটি টাকার বেশি ক্ষতি গুণতে হয়েছিল কেপিএমকে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ফোন হারিয়েছে বলে মোটর-সাইকেলে তুলে নেয় স্কুলছাত্রীকে, অতপর …

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় পঞ্চম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত শহিদুল ইসলাম …

Leave a Reply