খাগড়াছড়ি

আওয়ামীলীগের সাথে পৌর মেয়র সমর্থকদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

খাগড়াছড়ির জেলা শহরের শাপলা চত্বর এলাকায় জেলা আওয়ামীলীগের সাথে পৌর মেয়রের সমর্থকদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় পুলিশসহ উভয় পক্ষের ৭জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এরমধ্যে দুইজনকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন রুবেল(২৯) ও ¤্রাসাউ মারমা(৩৫)। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে।

জানা যায়, গত সোমবার সন্ধ্যায় পৌর শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক বেলাল হোসেনকে কুপিয়ে জখম করা হয়। ঘটনায় পৌর মেয়র রফিকুল আলমকে দায়ী করা হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় শহরের কদমতলী এলাকা থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। এদিকে মিছিলটি প্রতিহত করতে মেয়র রফিকুল আলমের সমর্থরা মিছিল বের করে। পরে মিছিল দুটি মাস্টার পাড়া মোড়ে আসলে উভয় পক্ষ ধাওয়া-পাল্টা ও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। ঘটনায় পুলিশ, পথচারী শিশুসহ ৭জন আহত হয়। এসময় শহরে আতংক ছড়িয়ে। দোকানপাট বন্ধ করে স্থানীয় নিরাপদে সরে যান।

পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাবেদ হোসেন জানান, আমরা শ্রমিক লীগ নেতা বেলালের উপর হামলার ঘটনা জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করি। মিছিলটি মাস্টারপাড়া মোড়ে আসলে পৌর মেয়র রফিকুল আলম ও তাঁর ছোট ভাই দিদারুল আলমের নেতৃত্বে লাঠিসোঠা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করে। এসময় মেয়র সমর্থকরা আমাদেরকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এদিকে বেলালের ওপর হামলা এবং সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছে পৌরমেয়রের সমর্থকরা।

খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম সালাউদ্দিন জানান, পুলিশ তাৎÿণিক কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে বলেও জানান তিনি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 3 =

Back to top button