নীড় পাতা / ব্রেকিং / আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যতে বিষাদ পাহাড়েও
parbatyachattagram

আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যতে বিষাদ পাহাড়েও

দেশবরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর অকাল মৃত্যুর বিষাদ ছুঁয়েছে পার্বত্য রাঙামাটির সঙ্গীতশিল্পী ও শিল্পিদের মাঝেও।

রাঙামাটির সঙ্গীত শিল্পি ও শিক্ষক শেখর মল্লিক বেদনাভরা কন্ঠে বলেন, দুর্গাপূজার আনন্দটাই মাটি হয়ে গেছে প্রিয় শিল্পির প্রয়াণে। কিংবদন্তী এই শিল্পির গান শুনে,গেয়ে গেয়েই আমরা শিল্পি হয়েছি। খুব খারাপ লাগছে। কোনভাবেই বোঝাতে পারবনা এই অনুভূতি। ‘সেই তুমি…’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গান আমাদের বুকে সারাজীবন গেঁথে থাকবে।’

রাঙামাটির সাইক্লোন ব্যান্ড এর প্রধান ও ব্যান্ডশিল্পি জিকো মারমা বলেন, আইয়ুব বাচ্চু শুধু শিল্পিই নন, তিনি একজন লিজেন্ড,বাংলা ব্যান্ডের আইকন। তার মৃত্যুতে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গেলো এই দেশের ব্যান্ডশিল্পের,সঙ্গীতজগতের। তার গান ছাড়া এদেশে কোন ব্যান্ড কনসার্ট হতেই পারেনা। ‘সেই তুমি’ ‘তারা ভরা রাতে’ সহ অসংখ্য গান এদেশের মানুষের মুখে মুখে ফিরবে যুগের পর যুগ।’

রাঙামাটির ‘ফেসঅফ’ ব্যান্ডের ভোকাল নিপ্লব দাশ গুপ্ত বলেছেন, বিশ^াস করবেন কিনা জানিনা,আমি সকাল থেকেই কান্না করছি। খবরটি শোনার পর থেকেই চোখের পানি ঝরছি। আমার পূজোর আনন্দ মাটি হয়ে গেছে। আমি প্রতিটি কনসার্টে আইয়ুব বাচ্চুর ‘সেই তুমি’ গানটি দিয়েই শুরু করি সবসময়।’ নিপ্লব বলেন, ‘ এই দেশের এমন একজন তরুণও পাবেন না,যে আইয়ুব বাচ্চুকে আইকন মেনে গান শুরু করেনি। আমাদের প্রজন্ম বড় হয়েছে,গিটার বাজিয়েছে,গিটার হাতে নিয়ে ঘুরেছে,বাচ্চু ভাইয়ের ‘গিটার প্লে’ দেখেই। বাচ্চু ভাই, একজন অসাধারন শিল্পি,অনন্য মানুষ ছিলেন।’

ড্রিম ব্যান্ডের প্রধান শিল্পি সৌমেন চক্রবর্তী বলেছেন, নবমীতে শহরের আইচবাড়িতে আমাদের কনসার্ট ছিলো, বাচ্চু ভাইয়ের সংবাদটি শোনার পর সেটি বাতিল করেছি আমরা। আমার পূজোর আনন্দ,উচ্ছাস সবই শেষ হয়ে গেলো। বাচ্চু ভাই আমাদের গানের প্রেরণা,তোকে ফলো করতাম আমরা সবাই। আমাদের শিল্পি হয়ে ওঠার পেছনে বাচ্চু ভাইরাই ছিলেন আইকন। আজ বাংলাদেশের সব শিল্পিদের বেদনা,হতাশা,কষ্টের দিন। আমরা গান গাইবার প্রতিটি ক্ষণেই মিস করবো প্রিয় বাচ্চু ভাইকে।

প্রসঙ্গত, বাংলা ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তিতুল্য শিল্পী, গিটারবাদক আইয়ুব বাচ্চু আর নেই। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। অসুস্থ অবস্থায় স্কয়ার হাসপাতালে আনার পর মারা যান তিনি। বৃহস্পতিবার সকালে অসুস্থবোধ করছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। হাসপাতালে অচেতন অবস্থায় আনা হয় তাঁকে। এরপর চিকিৎকরা জানান তিনি আর নেই।

জনপ্রিয় ব্যান্ড এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, সংগীত পরিচালক। ১৯৭৮ সালে তাঁর যাত্রা শুরু হয় ফিলিংস ব্যান্ডের মাধ্যমে। এরপর ১০ বছর সোলস ব্যান্ডে লিড গিটারিস্ট হিসেবে যুক্ত ছিলেন তিনি। আশির দশকে একাধিক একক অ্যালবাম বেরুলেও নব্বইয়ের দশকে ‘ডাবল অ্যালবাম’ দিয়ে এলআরবির যাত্রা শুরু হয়। তখন ব্যান্ডটির নাম ছিল ‘লিটল রিভার ব্যান্ড’। পরে ব্যান্ডের নাম পাল্টে রাখা হয় ‘লাভ রানস ব্লাইন্ড’।

১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আইয়ুব বাচ্চু। ‘চলো বদলে যাই’, ‘ফেরারি মন’, ‘এখন অনেক রাত’, ‘হকার’, ‘আমি বারো মাস তোমায় ভালোবাসি’,‘বাংলাদেশ’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গানের স্রষ্টা তিনি। সঙ্গীতজগতে তিনি এবি নামে পরিচিত হলেও তাঁর ডাকনাম ছিল রবিন। এ নামেও তিনি নব্বইয়ের দশকে একক অ্যালবাম বের করেন। আইয়ুব বাচ্চু শুধু গায়ক ও বাদক হিসেবেই নয়, দেশের অনেক জনপ্রিয় গানের সুরও করেছেন তিনি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ফোন হারিয়েছে বলে মোটর-সাইকেলে তুলে নেয় স্কুলছাত্রীকে, অতপর …

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় পঞ্চম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত শহিদুল ইসলাম …

Leave a Reply