ব্রেকিংরাঙামাটিলিড

অস্থিতিশীল ফারুয়ায় আতংকের দিনরাত

রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার ৩নং ফারুয়া ইউনিয়নের মানুষ আতংকে বাস করছে বলে মন্তব্য করেছেন এলাকার বাসিন্দারা। বিভিন্ন কারণে অবৈধ অস্ত্রধারীদের জন্য বিলাইছড়ির ৩নং ফারুয়া ইউনিয়নে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে অভিযোগ তাদের।

ফারুয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা মৌটুসী তঞ্চঙ্গ্যা(ছদ্মনাম) জানান, ফারুয়া ইউনিয়নের বেশ কিছু অবৈধ অস্ত্রধারী লোক রয়েছে, যাদের কারণে সাধারণ জনগণ জুম চাষসহ কোন প্রকার কাজ করতে পারছে না। তাদেরকে চাঁদার বিনিময়ে জীবন বাঁচাতে হচ্ছে মন্তব্য করে তিনি আরো বলেন, এ সন্ত্রাসীদেরকে চাঁদা দিলে তারা আর বিরক্ত করে না কয়েক সপ্তাহ, পরে দেখা যায় আবারো তারা বিরক্ত করতে থাকে এবং বিভিন্ন ধরণের হুমকি দেয়। তিনি আরো বলেন, ফারুয়া ইউনিয়নের দীপংকর ভান্তে নামক ভান্তের উপাসনা করতে দেওয়া হচ্ছে না অত্র এলাকার সাধারণ মানুষজনকে। ধর্ম পালনের ক্ষেত্রেও বাধা দেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

অন্য এক বাসিন্দা প্রিয়লাল তঞ্চঙ্গ্যা(ছদ্মনাম) বলেন, আমরা জুমে যেতে পারি না, কোন প্রকার বাজারে দোকান করতে পারি না, কিছু অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা এসে আমাদেরকে বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়। এমন অবস্থায় আমাদেরকে খুবই আতংকে বসবাস করতে হচ্ছে।

ফারুয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হৃদয় বিকাশ তঞ্চঙ্গা বলেন, ফারুয়াতে জেএসএস’র অস্ত্রধারী কিছু সন্ত্রাসীরা আমাদেরকে বিভিন্নভাবে জিম্মি করে রেখেছে। তারা সাধারণ জনগণকে কোনভাবেই সেখানে স্বাভাবিক অবস্থায় বসবাস করতে দিচ্ছে না। প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরণের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। গত কিছুদিন আগেও আওয়ামী লীগ’র এক কর্মীর ওপরে হামলা চালায় এ সন্ত্রাসী গোষ্ঠি।

তিনি আরো বলেন, আমাদের এলাকায় দীপংকর ভান্তে নামক একজন ভান্তে রয়েছে, তাকে দেখাশুনা করা জন্যে আমরা যেতে চাইলে এ অস্ত্রধারীরা আমাদেরকে বাধা দেয়। কারণ ভান্তে সঠিক কথা বলে, সেজন্যে তাকেও বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। এমন আতংকগ্রস্ত ফারুয়াবাসীকে সহযোগিতার জন্য তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) কেন্দ্রীয় সহ-তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা এ প্রসঙ্গে বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী মহল এ বিষয়ে জনগণকে জড়িয়ে অভিযোগ করতে চাইছে, যার সাথে জনসংহতি সমিতির কোনও সম্পৃক্ততা নাই। এটা এলাকার বিষয়, এলাকার লোকই ভালো বলতে পারবে। কিন্তু জেএসএস এ বিষয়ের সাথে সম্পৃক্ত নয় বলে জানান তিনি।

বিলাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহম্মেদ নাছির উদ্দিন মোহাম্মদ জানান, বিলাইছড়ি উপজেলায় ফারুয়া ইউনিয়নসহ বিভিন্ন এলাকার বেশ কয়েকটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে মানুষ কিছুটা আতংকে থাকলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক। তিনি আরো জানান, ফারুয়া ইউনিয়নে একটি বৌদ্ধ বিহারকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। সমস্য মোকাবেলা করার জন্যে প্রশাসন সর্বস্তরের মানুষকে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছে বলেও জানান তিনি। এ বিহার ও বিলাইছড়িতে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে কয়েকটি মামলা ও বেশ কয়েকজন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button