রাঙামাটি

অজানা রোগে আক্রান্ত ২৫ পরিবার,৩ মাস ধরে চলছে ঝাড়ফুঁক !

রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ফটিকছড়ির ডলুপাড়া গ্রামে

কাউখালী উপজেলার দুর্গম ফটিকছড়ি ইউনিয়নের ডলুপড়া গ্রাম। উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার। যেখানে কু-সংস্কারের অন্ধকারে রয়ে গেছে পুরো গ্রামের মানুষ। ডলুপাড়া গ্রামের ২৫ থেকে ৩০ টি পরিবার অজ্ঞাত মানষিক রোগে আক্রান্ত হয়েছে। গত তিনমাসেরও বেশি সময় ধরেই চলছে স্থানীয় বৈদ্য দ্বারা ঝাড়-ফুঁকের (কবিরাজী) চিকিৎসা। যদিও তিন মাসের কবিরাজী চিকিৎসায় কোন ফলও পাইনি তারা। তারপরও স্থানীয়দের ধারণা এতেই সুস্থ হবে আক্রান্তরা। আর সে ধারণা নিয়েই চলছে তাদের সুস্থ করার ব্যর্থ চেষ্টা।

ফটিকছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ধন কুমার চাকমার সাথে সোমবার বিকেলে কথা বলে জানাযায়- প্রায় ৩ মাস আগে থেকে ডলুপাড়া গ্রামে এই সমস্যা এক জনের দেখা দেয়। ধীরে ধীরে গ্রামের প্রায় ২৫ থেকে ৩০ পরিবার এ রোগে আক্রান্ত হয়। তিনি জানান- আক্রান্তরা কখনো হাসে, কখনো কাঁদে, মানুষ বুঝে কথা বলে, নিজে নিজেই কথা বলতে থাকে। তারা নিজেরাই বলে তাদের যাদু করা হয়েছে। যে যাদু করেছে সে মারা যাওয়ায় তার শীর্ষ আর যাদু কাটাতে পারছেনা তাই তারাও সুস্থ হয়ে উঠছেনা। সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন- এটা কোন রোগ না। জায়গা জমি বিরোধ বা অন্য কোন কারণে ত্রান্ত্রিক যাদু টোনা করা হয়েছে। তা কাটানোর জন্য তারা চেষ্টাও করে যাচ্ছে।

ঘটনার বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন- কাউকে জানানো হয়নি। স্থানীয় ভাবেই ঝাড়-ফুকের মাধ্যমে চিকিৎসা চলছে। তবে সাংবাদিক এবিষয়ে ডাক্তারকে জানানো অনুরোধ জানালে ধন কুমার চাকমা মঙ্গলবার সকালে ডাক্তারের সাথে আলাপ করেছেন বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুইমেপ্রæ রোয়াজা জানান- সকালে চেয়ারম্যান বিষয়টি আমাকে জানিয়েছেন। লক্ষণ গুলো শুনে মনে হচ্ছে নিউরোলজিক্যাল সমস্যা হতে পারে। একটি টিম গঠন করা হয়েছে। বুধবার সকালে তাদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসার সহ রোগের ইতিহাস উল্লেখ পূর্বক তারা একটি প্রতিবেদন জমা দিতে। প্রতিবেদনটি পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।

MicroWeb Technology Ltd

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Back to top button