নীড় পাতা / পাহাড়ের সংবাদ / আলোকিত পাহাড় / অচেনা বৃদ্ধার পাশে যুব রেডক্রিসেন্ট
parbatyachattagram

অচেনা বৃদ্ধার পাশে যুব রেডক্রিসেন্ট

আট-দশজনের মত দেখে হয়ত আপনিও অকপটেই বলে দেবেন, লোকটি সত্যিই পাগল! আজকাল শহুরে জীবনের অলিগলিতে এমন কত পাগলই-বা আছে, হয়ত এই লোকটি তাদেরই একজন। এই ভেবে হয়তবা এতদিন ধরে কেউ জিজ্ঞেস করেনি তার নাম-পরিচয়। গেল দুই সপ্তাহ ধরেই দেখতে এগোছালো এই বৃদ্ধা পড়েছিলেন রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট কার্যালয় ভবনের নিচতলাতেই। এই ক’টি রাত-দিন কাটিয়েছে এখনো অনাহারে এখনো অর্ধহারে। পাগল ভেবেইঠিকমত খাওয়াদাওয়া খেয়েছি কিনা- এমন খবরও রাখেনি আশপাশের কেউ। অবশ্য রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্টের সদস্যরা প্রায় সময়েই তাকে পাগল ভেবে খাবার দিয়েছেন।

কিন্তু শুক্রবার (৬ মার্চ) সকালে এই বৃদ্ধার সঙ্গে কথা বলে যতটা বুঝা গেল, সে পাগল নয়। কিন্তু শরীরের অবস্থা বেশ খারাপ। জিজ্ঞাসাবাদে এই বৃদ্ধা জানিয়েছেন তার নাম বেলী। ঠিক এর বেশি কিছুই জানাতে পারেননি। খাদ্যাভাবে শরীরের শক্তি হারিয়ে ঠিকমত কথা বলতে না পারায় তার পূর্ন পরিচয় জানা যায়নি। পরে রেড ক্রিসেন্টের যুব সদস্যরা সিদ্ধান্ত নিলেন তাকে গোসল করিয়ে হাসপাতালে নিবেন। গোসল সারিয়ে নাশতা খাওয়ানোর পর রেড ক্রিসেন্টের যুব সদস্যরা এই বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন।

রেড ক্রিসেন্টের কয়েকজন যুব সদস্য জানিয়েছেন, শুক্রবার তারা জানতে পারেন বেশ অসুস্থ অবস্থায় কাতরাচ্ছে অজ্ঞাত মানুষটি। তৎক্ষণাৎ ইউনিটের যুবপ্রধান রানা দে’কে অবগত করেরেড ক্রিসেন্ট যুব স্বেচ্ছাসেবক ও যুব কার্যকরী কমিটির স্বাস্থ্য ও সেবা বিভাগের প্রধানতাজুলের নেতৃত্বে আটজন যুব স্বেচ্ছাসেবক তাকেখাওয়া-দাওয়া এবং গোসল করিয়ে ভালো কাপড় পরিধান করিয়ে, মাথার উঁকুন ও পোঁকা ভরা চুল কেটে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান। ভর্তি করানোর পর দেখভালের দায়িত্ব দেয়া হয় চারজন যুব রেড ক্রিসেন্ট স্বেচ্ছাসেবককে।

জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মাঠ সংগঠক রাসেল বণিক জানিয়েছেন, গেল সপ্তাহ ধরে আমরা এই বৃদ্ধাকে খাবার দিয়ে আসছি। রাঙামাটিতে বৃদ্ধাশ্রম না থাকায় তাকে সে ব্যবস্থাও করে দেয়া যায়নি। পরে শুক্রবার সকালে রেড ক্রিসেন্টের যুব স্বেচ্ছাসেবকরাসহ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করাই। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এই বৃদ্ধার চিকিৎসাসহ যাবতীয় দেখভাল রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি করবে।

হাসপাতালের বরাত দিয়ে বণিক বলেন, এর আগেও এই বৃদ্ধা রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। কিছুদিন চিকিৎসা নেওয়ার পর সে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে এসেছে বলে আমাদের জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিপাকে পড়া মানুষের টিসিবি পণ্য সংগ্রহে ভিড়

পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) প্রভাবে বিপাকে পড়া মানুষের মাঝে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের …

Leave a Reply