প্রাইমারী টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে বৃষ কেতু চাকমা

সমতলের চাইতে পার্বত্য জেলা শিক্ষায় এখনও অনেক পিছিয়ে


প্রকাশের সময়: নভেম্বর 16, 2017

সমতলের চাইতে পার্বত্য জেলা শিক্ষায় এখনও অনেক পিছিয়ে

রাঙামাটি প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

রাঙামাটি প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের সুপারিনটেনডেন্ট সুলতানা পারভীনের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে পিটিআই এর ইন্সট্রাক্টর পার্থ প্রতীম চৌধুরী, ইন্সট্রাক্টর শ্যামল বড়–য়া, ইন্সট্রাক্টর এমরানুল ইসলাম মানিক ও প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষক রাশেদুজ্জামান তালুকদার বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা উপস্থিত প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, সমতল এলাকার চাইতে পার্বত্য জেলা শিক্ষার দিক দিয়ে এখনও অনেক পিছিয়ে রয়েছে। তিনি বলেন, এ পার্বত্য অঞ্চলের উন্নয়ন করতে হলে আমাদের শিক্ষিত জাতি গঠন করতে হবে। তা না হলে আমাদের এ জেলা আরো পিছিয়ে যাবো। তাই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিজের সন্তানের ন্যায় পাঠদান করাতে শিক্ষকদের তিনি পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, এ নতুন প্রজন্মের শিশুরাই আমাদের আগামীর ভবিষ্যৎ। এদের সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারলে এ জেলা অনেক দূর এগিয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্যবাসীর প্রতি খুবই আন্তরিক বলেই শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধে এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের জন্য নিজ নিজ মাতৃভাষায় পাঠ্যবই প্রকাশ করেছেন। এ উদ্দেশ্য সফল করার লক্ষ্যে জেলা পরিষদ হতে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ভাষা ও লেখার ওপর প্রশিক্ষণ প্রদান করছে। তিনি বলেন, শিক্ষার পাশাপাশি ক্রীড়ারও প্রয়োজন রয়েছে। সুস্থ দেহ ও সুস্থ মন বজায় রাখতে ক্রীড়ার কোন বিকল্প নেই। এছাড়া ক্রীড়া ক্ষেত্রেও আমাদের দেশ বিশ্বের মাঝে এখন অনেক পরিচিত। তাই তিনি বিদ্যালয়ে পড়ালেখার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায়ও মনোনিবেশ করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

পরে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী পিটিআই পরীক্ষণ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকদের মাঝে অতিথিরা পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Top advertise


এই সংবাদটিতে আপনার মতামত প্রকাশ করুন

avatar
  Subscribe  
newest oldest most voted
Notify of
Chakma Pores
Guest
কাব্য নীল তোমার
Guest

বাড়াটি শিক্ষক দিয়ে পড়ালে কি পিছাবে না।

Nuntu Chakma
Guest

৭-৮-৯ লাখ দিয়ে চাকুরি দিন। তাহলে আর পিছিয়ে থাকবেনা।

Ripon Tripura Babu
Guest

শিক্ষক শিক্ষিত হতে হবে

Sudipto Chakma
Guest

absolutely right