মাঝদুপুরে রোদের স্নানে……


তানিয়া এ্যানি প্রকাশের সময়: নভেম্বর 13, 2017

মাঝদুপুরে রোদের স্নানে……

ঘড়ির কাটায় ঠিক ঠিক ১.৩০টা।মাথার ঠিক উপরে গনগনে সূর্য্য।গন্তব্য কাপ্তাই-রাঙামাটি সংযোগ সড়কের অমাথা থেকে এমাথা!আর বাহন দুচাকা।ভাবা যায়!!রীতিমত কাজের চাপ না হলে ওই সময়ে এপথে ছুটবেই বা কেন।কাজ শেষ।ফিরতেতো হবেই।ব্যাপারটা এমন রীতিমত ঈশ্বরের নাম নিয়ে বাইক ছুটছে।রোদের তেজে মাথা ঘুরে কিনবা চোখ ঘোলাটে হয়ে চিৎপটাং হলে শেষ।খা খা রোদ্দুরে খাঁ খাঁ করছে পথঘাট গাছের লতা পাতাও।কাক পক্ষীর শব্দও নেই কোথাও।ভোর সকালের ছুটোছুটিতে ক্লান্তি ভর করেছিলো বলে অনেকটা নিস্তেজও।চলছে গাড়ি।কিছুদূর এগোতে চোখ আটকালো মাচাং ঘরে।হাত পা এলিয়ে ছড়িয়ে আয়েশ করে জিড়িয়ে নিচ্ছে সবাই।কোথাও কোথাও গাছের ছায়ায় দেখা গেলো বেশ কজনকে।সময়টা জুম কাটার।সকাল বিকেল জুমে থাকা মানুষ গুলো মাঝ দুপুরে ছায়া খুঁজে খানিকটা দম নিচ্ছে যেন।ক্লান্ত শ্রান্ত।কেউ কেউ বাড়ি ফিরছে।স্কুল ছুটি ছোট ছোট বাচ্চারা ঘামে ভিজে ফিরছে ঘরে।কেউ কেউ বসে আছে টুকটাক সবজি সামগ্রী নিয়ে।এপথে যাতায়াত করা মানুষজন যার ক্রেতা।যদিও সকাল আর বিকেলেই বাজারটা জমে ভালো।বাড়ির উঠোনে মধ্যবয়স্কা গৃহিনী ব্যস্ত সবজি কাটাকুটিতে।চুলোয় রান্না বসবে একটু পরেই।ঘরেযে গরমে প্রাণ যায় যায় তাই ঊঠোনেই ব্যস্ততা।বাড়ির পাশে সোলার চার্জ নিচ্ছে পুরোদমেই।এইজন্য অন্তত এই পাড়ায় মধ্য দুপুরের গনগনে সূর্য্যটা আশীর্বাদও বলা যায়।বিদ্যুৎয়ের একমাত্র ব্যবস্থা যে এই সোলারই।কি নীরব শান্ত প্রশান্তি।হুট করেই ক্লান্তি হারিয়ে গেলো নিজেরও।ছুটতে ছুটতেই দু চাকার বাহন থামলো একদম খোলা আকাশের নিচে উঁচু টিলাটায়।রোদের আলোয় চিক চিক করছে জল।পাহাড় ছেয়ে আছে শুভ্র রোদে।পুরো শহর জলকণা একদম স্পষ্ট রোদের আভায়।তাকিয়ে থাকা দায় তবুও চোখ কী এড়ায়।টলমলে জলে গা ভেজানোর স্বাদ জাগতেই পারে,তবে তা দূরহ।ঘুরে দাঁড়িয়ে চোখ আটকালো পূব আকাশে।শব্দরা জড়িয়ে গেছে হঠাৎ।সাদা কালোয় জড়াজড়ি করে কুন্ডলী পাকিয়ে রোদ জেগে আছে মুগ্ধ রূপে।।মাঝে পাহাড় নিচে জল।উপরে শুদ্ধ শুভ্র রোদ।আর রোদের ঝিলিক জলে।বৈকালিক আড্ডায় খানিক বাদেই মুখর হয়ে উঠবে যে পথ লেকের ধার আমি জড়িয়েছি তার নির্জনতা,নিজেস্বতা।পুরোটা পথ ফিরেছি মুগ্ধতা সাথে নিয়েই।নির্জন নির্জনতায় রোদের ভালোবাসায়।হুম ভালোবাসাই।ওভাবে কখনো কি দেখেছি!নাতো।সাহস করে মাঝ দুপুরে ছুটতে পারেন এপথে।নৈসর্গিক নীরব স্নিগ্ধতা আর শুভ্র রোদের ছড়িয়ে দেয়া নিশ্চুপ ভালোবাসা কেমন এক অদ্ভুদ ঘোরে ডুবিয়ে রাখবেই আপনাকে।।মেঘ কালো বৃষ্টিতে ডুব দেই তবে শুভ্র মেঘের আলোক রোদে কেন ভিজবো না!রোদে ভেজা আলোয় নিজের ছায়াটাও কি অদ্ভুদ ভাবে উপস্থিতি জানান দেয় নিজ অস্তিত্বের।টের পেয়েছেন কখনো!

লেখা ও ছবি : তানিয়া এ্যানি
১৪.১১.২০১৭

সংবাদটি শেয়ার করুন

Top advertise


এই সংবাদটিতে আপনার মতামত প্রকাশ করুন

avatar
  Subscribe  
newest oldest most voted
Notify of
Kalponik Jibon
Guest

এইটা কী নিউজ নাকি? ??

Rabiul Ahasan
Guest

লেখক একজন ভাল পাঠক ও বটে।।।???