নীড় পাতা / ব্রেকিং / প্রধানমন্ত্রীকে যা বলেছেন ঊষাতন তালুকদার

প্রধানমন্ত্রীকে যা বলেছেন ঊষাতন তালুকদার

৪০০০ তম পাড়াকেন্দ্র উদ্বোধনকালে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি প্রসঙ্গে সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদার বলেছেন, আমরা দেখতে পারচ্ছি ইদানিং চুক্তি বাস্তবায়নে আপনি সুদৃষ্টি রাখছেন। আশা করবো আপনার উদ্যেগে ও আপনার হস্তক্ষেপে চুক্তি বাস্তবায়ন হবে। সরকারের শেষ প্রান্তে এসে, চুক্তির মৌলিক মৌলিক অংশগুলো বাস্তবায়ন হবে আমরা দেখতে পাচ্ছি ও আশা রাখছি।
কর্ণফুলী পেপার মিল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে অবস্থিত কর্ণফুলী পেপার মিল একটি ঐতিহাসিক পেপার মিল। এটাকে বাঁচিয়ে রাখতে, রক্ষা করতে, যাতে বেঁচে থাকে সে জন্যে মহান সংসদে আমি প্রশ্নোত্তর পর্বে আপনাকে প্রশ্ন করেছিলাম, এর ফলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি বেশ কিছু অর্থ এখানে বরাদ্ধ দিয়েছিলেন। আমরা আশা করবো এ মিলের প্রতি আপনি আরো বিশেষ নজর দিবেন।’
রবিবার সকালে কাপ্তাই পাড়া কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সরাসরি ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সংলাপে অংশ নিয়ে ২৯৯ আসনের সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার এসব কথা বলেছেন।
এসময় তিনি আরো বলেন, কাপ্তাই হ্রদের নাব্যতা হ্রাস পেয়েছে, এ হ্রদের ড্রেজিং করা খুবই প্রয়োজন, তাই আপনার সুদৃষ্টি কামনা করছি।
পাড়া কেন্দ্র প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ পাড়া কেন্দ্রগুলো পাহাড়ে শিক্ষার আলো ছড়াতে কাজ করছে। আগে স্থানীয় উপকরণ দিয়ে এই পাড়া কেন্দ্রগুলো নির্মাণ করা হতো বলে স্থায়িত্ব ছিলো কম। কিন্তু বর্তমানে যেখানে স্থায়ী অবকাঠামোর মাধ্যমে পাড়া কেন্দ্রগুলো নির্মিত হচ্ছে, এতে আমার এলাকার জনগণ খুশি হয়েছে, তাদের পক্ষ থেকে আপনাকে গভীর কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।
পার্বত্য এলাকায় ভৌগলিক অবস্থান বিবেচনায় বেশ কিছু হোস্টেল নির্মাণের জন্যে আপনার কাছে দাবি জানিয়েছিলাম। পার্বত্য অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া মানুষদের এগিয়ে নিয়ে যেতে দুর্গম এলাকায় শিক্ষার্থীদের আবাসন সমস্য সমাধানের জন্যে হোস্টেল নির্মাণ করে আমাদের পাশে থাকবেন। এ বিষয়েও আপনি সুদৃষ্টি দিবেন বলে আশা রাখছি।’

আরো দেখুন

পাহাড়ে রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের ব্যবহার না করার আহ্বান

‘পাহাড়ে আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের সংঘাতপূর্ণ অবস্থার কারণে একের পর এক হত্যার ঘটনা ঘটছে। প্রতিদিনই পড়ছে …

2 মন্তব্য

  1. উষাতন তালুকদার একজন জন প্রতিনিধির মতো কথা বলেছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

17 − 3 =