নীড় পাতা / পাহাড়ের সংবাদ / বান্দরবান / প্রথম বৃষ্টিতেই হেলে পড়লো জেলা পরিষদের দেয়াল !

প্রথম বৃষ্টিতেই হেলে পড়লো জেলা পরিষদের দেয়াল !

বান্দরবানে নির্মাণের পর প্রথম বৃষ্টিতে হেলে পড়লো প্রতিরক্ষা দেয়াল। নির্মাণ কাজে ত্রুটি এবং সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীর অদক্ষতায় ঝুঁকিপূর্ন হয়ে পড়েছে পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্মাণাধীন ৫ তলা ডরমেটরী ভবনও, অভিযোগ স্থানীয়দের। সোমবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।
প্রকৌশল বিভাগ ও স্থানীয়রা জানায়, জেলা শহরের জজ কোর্ট এলাকায় বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে ৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে পার্বত্য জেলা পরিষদের নিজস্ব পাঁচতলা ডরমেটরী ভবন’সহ ভবনের সুরক্ষায় একটি প্রতিরক্ষা দেয়াল নির্মাণের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। মেসার্স কিংমে লাইসেন্সে উন্নয়ন কাজটি বাস্তবায়ন করছেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তৌহিদুর রহমান রাশেদ চৌধুরী’সহ কয়েকজন ঠিকাদার। নির্মাণাধীন ডরমেটরী ভবনের নিরাপত্তায় নির্মিত প্রায় বিশফুট লম্বা প্রতিরক্ষা দেয়ালটি প্রথম বৃষ্টিতে মাটি ধসে হেলে পড়েছে। যে কোনো মুহুর্তে দেয়ালটি পাশ্ববর্তী রাস্তার উপরে সম্পূর্ন ধসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। ঝুকি নিয়ে সড়ক দিয়ে চলাচল করছে লোকজনেরা। নির্মাণ কাজে ত্রুটি এবং প্রকৌশলীর অদক্ষতায় প্রতিরক্ষা দেয়ালটি ধসে পড়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। এদিকে প্রতিরক্ষা দেয়ালটি ধসে পড়ায় নির্মাণাধীন পাঁচ তলা ভবনটির নির্মাণ কাজের গুনগতমান নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন নাম প্রকাশে অনিশ্চুক কয়েকজন বিশিষ্ট ঠিকাদার।

ক্ষমতাসীন দলের নেতা নির্মাণ কাজের ঠিকাদার তৌহিদুর রহমান রাশেদ চৌধুরী বলেন, নির্মাণ কাজে কোনো ধরণের অনিয়ম এবং ত্রুটি ছিলনা। মাটির চাপ নিতে না পারায় বৃষ্টিতে দেয়ালটি হেলে পড়েছে।

এ ব্যাপারে পার্বত্য জেলা বান্দরবানের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান জানান, নির্মাণ কাজে ত্রুটির কারণে দেয়ালটি হেলে পড়েনি। মাটির চাপ নিতে না পারায় বৃষ্টিতে দেয়ালটি হেলে পড়েছে। দেয়াল’সহ ভবন নির্মাণের কাজটি এখনো চলমান। হেলে পড়া দেয়ালটি ভেঙ্গে ফেলতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পুনরায় একই স্থানে আরেকটি দেয়াল নির্মাণ করে দেয়া হবে। মেসার্স কিংমে লাইসেন্সে রাশেদ চৌধুরী’সহ কয়েকজন ঠিকাদার ৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে উন্নয়ন কাজটি বাস্তবায়ন করছে।

আরো দেখুন

মানিকছড়িতে ছাত্রলীগের শীতবস্ত্র বিতরণ

পাহাড়ে জেঁকে বসেছে শীত। এতে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে অসহায় দরিদ্র মানুষ। রাতে ঘরে, উঠানে আগুন …

17 মন্তব্য

  1. ay post e ki funny kicu cilo naki???hasir react disen kara…bibekhin

  2. চারিদিকে বাঁশ আর বাঁশ,এবার কিছু বাঁশ সরকারে পেচনে দেওয়া দরকার।

  3. কেন ভাই???
    রোয়াংছড়ি কেয়াংয়ে তো
    প্রবল বৃষ্টিতে ভেংগে পড়ছে,সেই নিউজ…………. সহ থাকলে ভাল হত

  4. উল্টা উনাদের লাভ,বাজেট আসবে।

  5. দূর্নীতি আদলে ঘেরা সব কিছু দেয়াল হেলে পড়বে না তো কী, ,,

  6. মধ্যম আয়ের দেশ বলে কথা!!!!!!!!

  7. এটা বাউন্ডারী ওয়াল..আর বাউন্ডারী ওয়াল সাধারনত ইটের গাঁথুনী দ্বারা দেওয়া হয়ে থাকে..আর যদি মাটির ভার বহনের জন্য ওয়াল করা হয় তাহলে সেটা “শেয়ার ওয়াল” বলা হয়ে থাকে..এবং এটি পুরোটাই রড এবং কনক্রিট দ্বারা তৈরী হয়.এখন কাজটার যখন টেন্ডার হয় তখন সেই ওয়াল টা করার ক্ষেত্রে কি সাধারণ ব্রিকওয়াল করার কথা ছিলো নাকি শেয়ার ওয়াল করার কথা ছিলো তা দেখা উচিত..অযথা প্রকৌশল সংশ্লিষ্ট লোক নিয়ে খবর করা টা অযৌক্তিক..☺

  8. Pritom Dey একটা কথা মনে রাখিস, সাংবাদিকরারা সব জানে।
    বেশি বলসি না, পরে দেখবি…….

  9. আমরা শুদু ভুল দরতে জানি, কাজ করতে জানি না।।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eight + ten =