নীড় পাতা / ব্রেকিং / ‘পাহাড়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে’

‘পাহাড়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে’

পার্বত্য এলাকার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে। পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে একমাত্র শেখ হাসিনার সরকারই আন্তরিক। তাই এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে নৌকায় ভোট চাইলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। শনিবার সকালে রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া কলেজের চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে তিনি সাধারণ মানুষের কাছে ভোট চান।

এসময় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেন, পাহাড়ের শান্তি ফিরিয়ে আনতে পাহাড়ের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে। পাহাড়ে যারা অশান্তি সৃষ্টি করছে তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। কোন অপরাধীকে ছাড় দেওয়া হবে না। অপরাধী যেই হোক না কে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

এসময় পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর আরো বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকার ক্ষমতায় না থাকলে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা থাকবে না। তাই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে। আগামীতে পাহাড়ে আরো যা যা দরকার শেখ হাসিনা ঠিক তাই তাই করবেন। শেখ হাসিনা আমাদের জন্য কী করছে, সেটা বুঝবেন আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় না থাকলে।’

প্রতিমন্ত্রী শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, শিক্ষকদের সর্বাত্মক শিক্ষা প্রদান করতে হবে। প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত পাঠদান করবেন। আজকের ছেলেমেয়েরা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তাদের শিক্ষালাভের কোনও কমতি রাখা যাবে না। অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অভিভাবকরাও ছেলেমেয়েদের পড়ালেখার দিকে খেয়াল রাখতে হবে। ছেলেমেয়েরা কোথায় যায়, কী করে। দায়িত্বহীন অভিভাবক হলে চলবে না।

উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মুজিবুল আলম, বাঙ্গালহালিয়া কলেজের অধ্যক্ষ মো. ফরিদ মিয়া তালুকদার প্রমুখ।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে বাঙ্গালহালিয়া কলেজে প্রায় পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে একাডেমিক ভবন, আইসিটি ভবন, সীমান প্রাচীর ও ছাত্রাবাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উদ্বোধন করা হয়। এসময় মন্ত্রী ভবিষ্যতে বাঙ্গালহালিয়া কলেজকে সরকারিকরণ করা হবে হবে আশ^াস দেন।

রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিতে ও বড়খোলা পাড়ায় ২ কোটি ৩০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে বাঙ্গালহালিয়া কলেজের একাডেমিক ভবন, ছাত্রাবাস ও সীমানা প্রাচীর ও ১ কোটি ২৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে বড়খোলা পাড়ার রাস্তা, বড়খোলা পাড়া বৌদ্ধ বিহারের চেরাং ঘর, পাওয়ার টিলার ও বিহারের টাইলস্ স্থাপনের ভিত্তি স্থাপন করা হয়।

আরো দেখুন

পাহাড়ে রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের ব্যবহার না করার আহ্বান

‘পাহাড়ে আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের সংঘাতপূর্ণ অবস্থার কারণে একের পর এক হত্যার ঘটনা ঘটছে। প্রতিদিনই পড়ছে …

One comment

  1. কিন্তু সার গরীব অভিবাবকদেরতো ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া শেখাতে উৎসাহ আসতেছেনা।কারন অনেক টাকা পয়সা খরছ করে লেখাপড়াশেখালেও চাকরীরবেলায় মেধার কোন মুল্যথাকেনা।১০হইতে১৫লক্ক টাকাদিতে নাপারলে মেধা হয়েযায়অমেধা দেশটা যে কোথায় চলেযাচ্ছে খেয়াল রাখেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eight − two =