নীড় পাতা / ফিচার / খেলার মাঠ / পাহাড়েও লেগেছে বিশ্বকাপের হাওয়া

পাহাড়েও লেগেছে বিশ্বকাপের হাওয়া

সারা বিশ্বকে মাতিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল। সারা বিশে^র সাথে এই আনন্দে মেতে উঠেছে বাংলাদেশও, পিছিয়ে নেই পাহাড়-পর্বত ঘেরা রাঙামাটি জেলাও। জেলা জুড়ে এখন সকল আলোচনা-সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দু আসন্ন বিশ^কাপ ফুটবল খেলা নিয়ে। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে অফিস-আদালতেও সকল কাজ কর্মের ফাঁকে এখন শুধু বিশ^কাপের আলোচনা।

চায়ের চুমুকে ঝড় উঠেছে বিশ^কাপ নিয়ে পাড়ার প্রতিটি মোড়ের চায়ের দোকানে। প্রিয় দল কিংবা প্রিয় খেলোয়াড় নিয়ে তর্ক-বিতর্কে জড়িয়ে যাচ্ছে অনেকেই। নিজের পছন্দের দলকে নিয়ে নানান কথার ফুলঝুড়ি দিচ্ছে অপর পক্ষের কাছে। থেমে নেই সোশ্যাল মিডিয়াতেও। নিজের দলের প্রোফাইল ছবি দেওয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের মজার মজার কথা লিখে যাচ্ছেন তরুণেরা। গ্রুপ খুলে বিভিন্ন ধরণের আড্ডা জমাতেও দেখা যাচ্ছে সোসাল মিডিয়া জুড়ে।

বিশ^কাপ এলেই প্রিয় দলের মধ্যে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল থাকে শীর্ষে। পিছিয়ে নেই অন্য দলগুলোও। অনেকের পছন্দের তালিকায় থাকে জার্মানি, স্পেন, পর্তুগাল, ঘানা, সেনেগালসহ বিভিন্ন দেশ। নিজের পছন্দের দলের পতাকা অনেকেই উড়াতে দেখা গিয়েছে পাহাড়ের এই জনপদে। বাসা-বাড়ির ছাদে, দোকানে এমন কি গাড়িতেও পছন্দের তালিকায় থাকা দলের পতাকা উড়াতে দেখা গিয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া এক্টিভিস্ট নাছির উদ্দিন সোহেল বলেন, গত দুইবার সোশ্যাল মিডিয়া তেমন একটা সাড়া ছিলো না বলে বিশ^কাপ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তেমন কিছু দেখা যায়নি। তবে বর্তমান সরকার ডিজিটাল করার জন্যে যে কাজ করে যাচ্ছে এতে করে প্রায় জনের হাতে এখন উন্নত মানের মোবাইল রয়েছে। তাই এখন প্রায় মানুষই সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে সংযুক্ত। এবার বিশ^কাপ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ব্যাপক আলোচনা দেখা যাচ্ছে। তবে এই আলোচনা যেনো অন্য কাউকে আঘাত বা কষ্ট দেওয়ার মত না হয় এদিকে নজর রাখতে হবে। তিনি আরো বলেন, তরুণদের মাঝে বেশ কিছু এক্টিভিটি দেখা যাচ্ছে। তারা নিজেদের মেধাকে কাজে লাগিয়ে নিজের পছন্দের দলের জন্যে নানান কিছু তৈরি করছে যা আমাদের নতুন প্রজন্মকে নিজের মেধা বিকাশের একটি স্থান করে দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আমি আর্জেন্টিনা সমর্থন করি। আশা করছি এবারের খেলা ভালো জমবে। তবে ফাইনালে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের খেলা হলে অনেক জমজমাট হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ভেদভেদী বাজারের রাসেলের চায়ের দোকানের ছাদে আর্জেন্টিনার পতাকা উড়তে দেখা যায়। তার সাথে কথা বলে জানা যায় সে আর্জেন্টিনাকে সমর্থন করেন। তিনি বলেন, আমি ছোট বেলা থেকে আর্জেন্টিনাকে সমর্থন করি। ভালো লাগে দলটিকে। আশা করছি এবার কাপ আর্জেন্টিনার ঘরে যাবে।

সুমন মোবাইল টেলিকমে দোকানে দেখা যায় জার্মানির পতাকা। সুমন জানান, জার্মানি তার ভীষণ ভালো লাগে। জার্মানি খেলোয়াড়দের খেলার কৌশলটি দারুণ। আশা করছি এবার তারা চমক দেখাবে বিশ^বাসিকে।

দোকানে নয় শুধু বাড়ির ছাদেও রয়েছে পছন্দ দলের পতাকা। রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজার এলাকার বাসিন্দা মিশু দে ব্রাজিল সমর্থন করেন। তার বাসার ছাদে শোভা পেয়েছে ব্রাজিলের পতাকা। তিনি জানান, ২০০২ সালে ব্রাজিল যে বার বিশ^কাপ নিয়েছিলো তখন থেকে ব্রাজিলকে সমর্থন করেন তিনি। তিনি বলেন, ব্রাজিলের খেলা অসাধারণ আশা করা যায় এবার ভালো কিছু দেখতে পারবো। বিজয়ের বিষয়েও প্রত্যাশিত বলেও জানান তিনি।

বাড়ির ছাদে কিংবা দোকানে পতাকা দেখা যায় প্রতিবার কিন্তু সিএনজিতেও? অবাক করার বিষয় এটি। এমনই একজন আর্জেন্টিনার সমর্থক জুয়েল চাকমা। সে নিজের সিএনজিতে বিশ^কাপে পছন্দের দল আর্জেন্টিনার পতাকা লাগিয়েছে। তিনি বলেন, আমি আর্জেন্টিনাকে পছন্দ করি। আশা করি এবার তারাই বিশ^কাপ জিতবে।

রাঙামাটি শহরের বনরূপার রাস্তার পাশে বিশাল বড় এক আর্জেন্টিনার পতাকা শোভা পাচ্ছে। এমনই ভাবে পাহাড়ের প্রতিটি অলি-গলি থেকে শুরু করে সব স্থানে বইছে বিশ^কাপের হাওয়া।

রিপোর্টে ব্যবহৃত ছবিটি : দেবাশীষ দত্ত এর ফেসবুক থেকে নেয়া

আরো দেখুন

পাহাড়ে রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের ব্যবহার না করার আহ্বান

‘পাহাড়ে আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের সংঘাতপূর্ণ অবস্থার কারণে একের পর এক হত্যার ঘটনা ঘটছে। প্রতিদিনই পড়ছে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

nineteen − 14 =