নানিয়ারচরে ফের গ্রামবাসীকে অপহরণের অভিযোগ


প্রান্ত রনি প্রকাশের সময়: আগস্ট 6, 2018

নানিয়ারচরে ফের গ্রামবাসীকে অপহরণের অভিযোগ

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় তিন গ্রামবাসীকে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রসীত বিকাশ খীসা নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এ অভিযোগ করেছে।

এ ঘটনায় শনিবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) ও ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলকে দায়ী করেছেন সংগঠনটির রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা।

তবে অপহরণ ঘটনার সাথে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) ও ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক)।

বিবৃতিতে সচল চাকমা অভিযোগ করেন, ‘শনিবার দুপুর ১২টার দিকে উজ্জ্বল কান্তি চাকমা ওরফে দাজ্জে ও রনয় চাকমার নেতৃত্বে সংস্কার (জনসংহতি সমিতি-এমএন লারমা) ও মুখোশবাহিনীর (ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক) ১০-১২ জনের একটি সশস্ত্র দল টিএন্ডটি বাজারে হানা দিয়ে পাতাছড়ি গ্রামের বাসিন্দা রিপন চাকমা (২৬), বড়পুল পাড়ার বাসিন্দা ত্রিদীপ চাকমা (২৮) ও দীপংকর চাকমা(২৪) নামে তিনজনকে ‘অস্ত্রের মুখে’ অপহরণ করে নিয়ে যায়।’

তিনি বলেন, ‘গত মাসে নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান প্রীতিময় চাকমাসহ ২০ গ্রামবাসীকে অপহরণের পরও প্রশাসন এই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কার্যকর কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় তারা বারবার এ ধরনের অপহরণ ঘটনা সংঘটিত করছে।’

বিবৃতিতে তিনি অবিলম্বে অপহৃত তিন গ্রামবাসীদের উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবি জানান।

ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের দফতর সম্পাদক মিটন চাকমা বলেন, ‘অপহরণ বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা। এটা তাদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলেও এমন হতে পারে। এর সাথে আমাদের কোনও সম্পৃক্ততা নেই।’

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক প্রশান্ত চাকমা বলেন, ‘এটা উদ্দেশ্য প্রনোদিত। এরা নিজেরা ঘটনা ঘটিয়ে সবসময়ই আমাদের গাড়ে চাপিয়ে দেয়। এই অপহরণ ঘটনার সাথে আমাদের কোনও সম্পৃক্ততা নেই।’

নানিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল লতিফ জানান, এ ধরণের কোনও ঘটনার খবর তারা পাননি। এখনো পর্যন্ত কেউ থানায় কোনও অভিযোগও করেন নি। অভিযোগ পেলে তারা ব্যবস্থা নেবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Top advertise


এই সংবাদটিতে আপনার মতামত প্রকাশ করুন

avatar
  Subscribe  
Notify of