আবারো অস্থির পাহাড়

তিন উপজেলায় দুইজনকে হত্যা, আরেকজনকে হত্যার চেষ্টা


প্রকাশের সময়: ডিসেম্বর 5, 2017

তিন উপজেলায় দুইজনকে হত্যা, আরেকজনকে হত্যার চেষ্টা

আবারো অশান্ত হয়ে উঠছে পাহাড়। মঙ্গলবার দুই উপজেলায় আওয়ামীলী ও ইউপিডিএফ নেতা খুন আর আরেক উপজেলায় আওয়ামীলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটেছে।
রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় মঙ্গলবার সকালে এক সাবেক ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত ব্যক্তির নাম অনাধি রঞ্জন চাকমা (৫৫)।
মঙ্গলবার রাত সোয়া আটটার দিকে জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অরবিন্দ চাকমাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। উপজেলার সুবলং নিম্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সিঁড়ির পাশেই তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।
অপরদিকে সন্ধ্যায় বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রাসেল মার্মাকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পরে বাসায় যাওয়ার পথে ৫/৬জনের একদল যুবক লাঠি-শোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় তার মাথায় ও কানে জখম হয়।
নানিয়ারচরে নিহত অনাদি চাকমা ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর সমর্থক বলে দাবি করেছে সংগঠনটি। তারা এই ঘটনার জন্য নবগঠিত ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) কে দায়ি করেছে,তবে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

ইউপিডিএফ-এর সংগঠক বাবলু চাকমা জানিয়েছেন, শনিবার সকাল পৌনে দশটার দিকে নানিয়ারচর সতের মাইল ও আঠারো মাইল এর মধ্যবর্তী চিরঞ্জীব দোজরপাড়া এলাকার নিজ বাসা থেকে ডেকে বের করে গুলি করে হত্যা করে পালিয়ে যায় নবগঠিত ইউপিডিএফ(গণতান্ত্রিক) এর কয়েকজন সশস্ত্র ক্যাডার।

তবে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা বর্মা জানিয়েছেন, সকালে আমাদের দলে যোগ দিতে আসার পথেই তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। তিনি এই হত্যাকান্ডের জন্য ইউপিডিএফকে দায়ি করেছেন।

নানিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আব্দুল লতিফ জানিয়েছেন, অনাধি রঞ্জন চাকমা নামের একজনকে গুলি করে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি।

এদিকে জুরাছড়িতে আওয়ামীলীগ নেতা নিহতের সত্যতা নিশ্চিত করে জুরাছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) কর্মকর্তা আবদুল বাসেত জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে লাশ গেছে। এই ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অপরদিকে বিলাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ ইকবাল উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হামলায় আহত রাশেদ মাহমুদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকামুক্ত বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

এদিকে জুরাছড়ি ও বিলাইছড়ি উপজেলার ঘটনার জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি(জেএসএস) কে দায়ি করেছেন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাজী মোঃ মুছা মাতব্বর। তিনি জানান, পার্বত্য চট্টগ্রামে এরাই অবৈধ অস্ত্রের মাধ্যমে চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাচ্ছে। তিনি দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান।

এদিকে এই অভিযোগ অস্বীকার করে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)-এর সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা বলেন, ঘটনাটি এই মাত্র শুনলাম। তবে এই ধরনের ঘটনার সাথে জেএসএস সম্পৃক্ত থাকতে পারেনা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Top advertise


এই সংবাদটিতে আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Notify of
avatar
Sort by:   newest | oldest | most voted
Nguyen Hyu
Guest

Madari Chakma ! Valo kaj korte parbea na sudu kharap tai korta para

wpDiscuz