ঢাকায় লাঠি মিছিল তিন পাহাড়ী সংগঠনের


প্রকাশের সময়: মার্চ 8, 2018

ঢাকায় লাঠি মিছিল তিন পাহাড়ী সংগঠনের

“৯৬-এ মুখোশ হটিয়েছি, এবার হটাবো নব্য মুখোশ” শ্লোগানে ‘মুখোশবাহিনী’ দমনের ২২তম বার্ষিকীতে দুর্বৃত্ত প্রতিরোধের প্রত্যয়ে বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সম্মুখে লাঠিমিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ) ও হিলউইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ)।

বিকাল সাড়ে ৪ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামে নলাঠি ও বিভিন্ন শ্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে জড়ো হয় তিনসংগঠনের নেতাকর্মীরা। সংক্ষিপ্ত ব্রিফিং শেষে শুরু হয় বিক্ষুব্ধ লাঠি মিছিল। মিছিলটি হাইকোর্ট চত্বর হয়ে তোপখানা রোড ও পুরান পল্টন মোড়ঘুরে আবার প্রেসক্লাবের সম্মুখে ফিরে সেখানে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশ থেকে বক্তারা খাগড়াছড়িতে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচী পালন করতে যেয়ে আইনশৃংখলাবাহিনী কর্তৃক বিনা উস্কানিতে পরিকল্পিতভাবে তিনসংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

সমাবেশ বক্তারা ১৯৯৬ সালে মুখোশবাহিনী প্রতিরোধ করতে যেয়ে গুলিতে নিহত শহীদ অমর বিকাশ চাকমাকে গভীরভাবে স্মরণ করেন এবং সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে নতুন যে একটি সন্ত্রাসী গ্রুফ (জনগণতাদের নাম দিয়েছে নব্য মুখোশবাহিনী) সৃষ্টি করা হয়েছে অবিলম্বে তাদের মদদদান, আশ্রয়-প্রশ্রয়দান বন্ধ করতে হবে। তাদেরকে দিয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও রাজনৈতিক হত্যাকান্ড বন্ধ করতে হবে। অন্যথায় পার্বত্য চট্টগ্রামের বিক্ষুব্ধ প্রতিবাদী জনতার রোষ থেকে সরকার ও নিরাপত্তাবাহিনী কেউ রেহাই পাবেনা।

পিসিপি কেন্দ্রীয়সহ-সভাপতি বিপুল চাকমা’র সঞ্চালনায় ও এইচডব্লিউএফ-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা’র সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ সংগঠক মাইকেল চাকমা, ডিওয়াইএফ-এর কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক রিপন চাকমা ও পিসিপি কেন্দ্রীয় সভাপতি বিনয়ন চাকমা।

বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) এর কেন্দ্রীয় কমিটি দপ্তর সম্পাদক রোনাল চাকমা সাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এইসব তথ্য জানানো হয়েছে। ( সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

Top advertise


এই সংবাদটিতে আপনার মতামত প্রকাশ করুন

avatar
  Subscribe  
Notify of