এক বৃষ্টিতেই সড়ক কার্পেটিংয়ের এ কি হাল !


বান্দরবান প্রতিনিধি প্রকাশের সময়: জুন 14, 2018

এক বৃষ্টিতেই সড়ক কার্পেটিংয়ের এ কি হাল !

উন্নয়নের নামে বান্দরবানে লোপাট চলছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি)। কাজের গুনগতমান এবং অগ্রগতি যাচাই ও তদারকি না করেই ছাড় করা হচ্ছে উন্নয়ন কাজের অর্থ অভিযোগ স্থানীয়দের। জেলার আলীকদম উপজেলায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি) তত্বাবধানে নির্মিত সড়কের কার্পেটিং উঠে গেছে নির্মাণের মাত্র সাত দিনের মাথায়। নি¤œমানের ভিটুমিন’সহ সামগ্রি ব্যবহারের কারণে এলজিইডি’র উন্নয়ন কাজগুলো টেকসই হচ্ছে না অভিযোগ নাম প্রকাশে অনিশ্চুক কয়েকজন ঠিকাদারের।
প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানাগেছে, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি) অর্থায়নে ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে আলীকদম উপজেলা সদরে দুই হাজার ৩শ মিটার সড়ক সংস্কার (রক্ষণা-বেক্ষণের) কাজ চলমান রয়েছে। কে-হোসাইন এন্ড কোং লাইসেন্সের নামে ক্ষমতাসীনদল আওয়ামীলীগের নেতা নাছির উদ্দিন এবং বিএনপিনেতা আবু বক্কর যৌথভাবে উন্নয়ন কাজটি বাস্তবায়ন করছে। কার্যাদেশ অনুযায়ী ৮০ থেকে ১০০ গ্রেডের উন্নত মানের ভিটুমিন এবং ১২ এমএম সিলকোড পাথর ব্যবহার করে ১২ফুট প্রশস্ত সড়ক নির্মাণের কথা উল্লেখ রয়েছে। ২০১৭-১৮অর্থ বছরের উন্নয়ন কাজটি চলতি জুনমাসের মধ্যে সম্পন্ন করার বাধ্য বাধকতা রয়েছে।
অপরদিকে বান্দরবান সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের বাঘমারায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি) অর্থায়নে ৯৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০টি কালভার্ট, ৪০ মিটার গাইড ওয়াল এবং ২ কিলোমিটার নালা (ড্রেই) নির্মাণের কাজে নি¤œমানের ইট, পাহাড়ী ছড়ার বালু এবং অনুমোদন ছাড়া পাহাড়ের ঝিড়ি ঝর্ণা থেকে উত্তোলন করা অপরিপক্ষ লোকাল পাথর ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। মের্সাস সেলিম এন্ড ব্রাদার্স এর লাইসেন্সে উন্নয়ন কাজটি বাস্তবায়ন করছেন মো: শাহজাহান মিয়া।
স্থানীয়দের অভিযোগ, ঠিকাদার দায়িত্বশীল প্রকৌশলীদের ম্যানেজ করে নি¤œমানের ইরানী ভিটুমিন ব্যবহার করে ১২ এমএম সিলকোর্ড পাথরের স্তরের স্থলে ৬ থেকে ৭ এমএম কার্পেটিং করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দ্রুত তরিগড়ি করে উন্নয়ন কাজটি শেষ করতে প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রায় তিনশ মিটার রাস্তা নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। নির্মাণের মাত্র সাত দিনের মাথায় দুদিনের বৃষ্টিতে উঠে গেছে সড়কের কার্পেটিং। খবরটি ছড়িয়ে পড়ায় আলীকদমের ইউএনও, উপজেলা চেয়ারম্যান’সহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে উন্নয়ন কাজটি সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত কোনো ধরণের অর্থ ছাড় না করার পরামর্শ দেন এলজিইডি প্রকৌশলীকে।
ক্ষমতাসীন দলের নেতা ঠিকাদার নাছির উদ্দিন বলেন, উন্নয়ন কাজটি এখনো চলমান রয়েছে। চলতি জুনমাসের মধ্যে কাজটি শেষ করার কথা থাকলেও বৃষ্টির কারণে মাত্র ৩শ মিটারের মত কার্পেটিং করতে পেরেছি। নির্মাণের পর কিছুকিছু স্থানে সড়কের কার্পেটিং উঠে গেছে, কথাটি সত্য। বৃষ্টিতে পুরনো সড়কটি ভালোমত পরিস্কার করে কার্পেটিং করা সম্ভব হয়নি। তাই কার্পেটিং উঠে গেছে। এগুলো পুনরায় ঠিক করে দেয়া হবে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী আবু তালেব চৌধুরী বলেন, উন্নয়ন কাজে নি¤œমানের সামগ্রি ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই। বৃষ্টিতে নির্মাণাধীন আলীকদম উপজেলা পরিষদ সড়কের রাস্তার কিছু অংশের কার্পেটিং উঠে গেছে। কাজটি শেষ হওয়ার পূর্বে সেগুলো পুনরায় ঠিক করে নেয়া হবে। এখনো কোনো অর্থ ছাড় করা হয়নি। কাজটি শতভাগ শেষ করার পর কাজের অর্থ (বিল) দেয়া হবে।
স্থানীয় বাসিন্দার উথোয়াই চিং, চনুমং মারমা অভিযোগ করে বলেন, কার্যাদেশ অনুযায়ী উন্নতমানের ঝংকার খালের বালি, সিলেটের ৩-৪ সাইজের পাথর, এক নাম্বার ইট এবং ৬০-৪০ গ্রেড লোহার রড ব্যবহারের কথা রয়েছে। কিন্তু ঠিকাদার শর্ত অমান্য করে অনুমোদন ছাড়া লোকাল পাথর এবং পাহাড়ী ছড়ার নি¤œমানের বালি দিয়ে তরিগড়ি করে দ্রুত উন্নয়ন কাজটি শেষ করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। এলজিইডি’র উন্নয়ন কাজ এতটা নি¤œমানের হয়, আগে জানা ছিলোনা। স্থানীয়রা কয়েকদফায় প্রতিবাদ করলেও কোনো লাভ হয়নি।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ঠিকাদার মো: শাহজাহান মিয়া বলেন, উন্নয়ন কাজে নি¤œমানের সামগ্রি ব্যবহারের অভিযোগটি সত্য নয়। কার্যাদেশ অনুযায়ীই উন্নয়ন কাজটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে এলজিইডি’র সদর উপজেলা প্রকৌশলী জামাল উদ্দিন বলেন, উন্নয়ন কাজে ব্যবহারের জন্য লোকাল পাথর এবং ছড়ার বালি মওজুদ করা হয়েছিল। কিন্তু সেগুলো ব্যবহার করতে দেয়া হয়নি। কাজটি নিয়ে বেশি অভিযোগ আসায় এলজিইডি’র কর্মকর্তারা সার্বক্ষনিক তদারকি করছেন। তারপরও বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Top advertise


এই সংবাদটিতে আপনার মতামত প্রকাশ করুন

avatar
  Subscribe  
newest oldest most voted
Notify of
Ripon Tripura Babu
Guest

উপরে ফিটফাট…ভেতরে সদরঘাট…

Rohoman Moksud
Guest

ডিজিটাল

Sadhan Moni Chakma
Guest

বরাদ্দ সঠিক। বাস্তবায়ন বেঠিক। তাইতো এই রকম বেহাল অবস্তা।

Kazi Bappy
Guest

rangamati te joto kaj hosse sob kaj khub baje hosse…manus k boka banano hosse r kisuina

Abdur Razzak
Guest

সালারা সব চোর দে‌শের প্র‌তি দ‌শের প্র‌তি কে‌ান সালার মায়ামমতা নাই

Shah Alam
Guest

Chorer deshe er che valo ki hobe!