নীড় পাতা / পাহাড়ের সংবাদ / খাগড়াছড়ি / ইউপিডিএফ’র চাঁদার টাকা আটকে দিলো পুলিশ !

ইউপিডিএফ’র চাঁদার টাকা আটকে দিলো পুলিশ !

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ) এর প্রসিত খীসার নেতৃত্বাধীন অংশের সশস্ত্র কর্মীদের দাবিকৃত চাঁদা পরিশোধ করতে যাওয়ার সময় একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের প্রাইভেট কারসহ নগদ ৩৭ লক্ষ করা উদ্ধার করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন মো. জমিস উদ্দিন, মো. শফিক, মো. মাঈন উদ্দিন, আল-আমীন এবং প্রাইভেটকারের চালক মো. আলমগীর।
এরা সবাই সাম্প্রতিক সময়ে খাগড়াছড়ি জেলায় নির্মিতব্য বেশ কিছু নির্মাণ কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির এন্টারপ্রাইজের কর্মী ।

খাগড়াছড়ি সদর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মো. সাহাদত হোসেন টিটু জানান, ইউপিডিএফকে চাঁদা দিতে যাচ্ছে এমন গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার রাত ১১টার দিকে জেলা সদরের বিজিতলা চেকপোস্টে পুলিশ একটি প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো গ-৩৪-১০৪০) তল্লাশি করে ভেতর থেকে ৩৭ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয় এবং পাঁচ জনকে আটক করা হয়। এদের আসামি করে খাগড়াছড়ি সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আসামিদের ৭ দিন করে রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. জাকির হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করলেও সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ইউপিডিএফসহ পাহাড়ি আঞ্চলিক সংগঠনগুলো অনেক দিন ধরে চাঁদা দাবি করে কাজ বন্ধসহ নানা ধরের হুমকি দিয়ে আসছিলো। কিন্তু আমি তাদেরকে চাঁদা দেব-দিচ্ছি বলে আশ্বাস দিয়ে যাচ্ছি। উদ্ধার করা টাকাগুলো ব্রিজের শ্রমিকদের জন্য নিয়ে যাচ্ছিল বলেও জানান তিনি। তবে এতো রাতে কেন প্রাইভেটকারে করে টাকা নিতে হবে এমন প্রশ্নের কোনো উত্তর দিতে পারেননি তিনি।

প্রসঙ্গত,পার্বত্য চট্টগ্রামে তিন জেলা রাঙামাটি,খাগড়াছড়ি এবং বান্দরবানে যেকোন ঠিকাদারি কাজের শতাংশিক হারে চাঁদা প্রদান করতে হয় পাহাড়ের চার আঞ্চলিক দলকে। যে এলাকায় যে দলটির নিয়ন্ত্রন সেই এলাকায় সেই দলটিকেই চাঁদা দিতে হয়। আবার কোন কোন এলাকায় একাধিক সংগঠনকেও চাঁদা দিতে হয়। এসব বিষয়ে বিভিন্ন সময় ঠিকাদার,বাঙালী সংগঠন ও জাতীয় এবং আঞ্চলিক নানান সংগঠন অভিযোগ করে আসলেও বন্ধ হয়নি চাঁদাবাজি। বরং নির্ধারিত হারে চাঁদা প্রদান করা না হলে অপহরণ,গুম,খুনসহ নানান প্রতিহিংসার শিকার হতে হয়।

আরো দেখুন

পাহাড়ে রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের ব্যবহার না করার আহ্বান

‘পাহাড়ে আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের সংঘাতপূর্ণ অবস্থার কারণে একের পর এক হত্যার ঘটনা ঘটছে। প্রতিদিনই পড়ছে …

2 মন্তব্য

  1. চাদা যদি ৩৭ লাখ টাকা হয়, তাহলে কাজটি কত হাজার কোটি টাকার হতে পারে?এরখম উন্নয়ন মুলক কাজ অাদৌ পার্বত্য চট্টগামে হয় কিনা পার্বত্য মানুষ ভালো জানে।পাহাড়২৪ সম্পুন্ন সেনাবাহিনী পরিচালিত একটি,,,,।হিলে বিভ্রান্তি ছড়ানো তাদের কাজ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × 4 =