নীড় পাতা / ব্রেকিং / আপনারা আনন্দ করেন,আমরা বিক্ষুদ্ধ কেনো ? : উষাতন

আপনারা আনন্দ করেন,আমরা বিক্ষুদ্ধ কেনো ? : উষাতন

‘পার্বত্য চুক্তির দুইদশক পূর্তি উপলক্ষ্যে আপনারা বিজয় দিবসের মতো আনন্দ উৎসব করছেন,এই আনন্দে তো আমরাও অংশীদার হওয়ার কথা,কিন্তু আমরা কেনো বিক্ষুদ্ধ, কেনো প্রতিবাদ সমাবেশ করছি, সেটা বোঝার চেষ্টাও নেই আপনাদের’-ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেছেন রাঙামাটি থেকে নির্বাচিত স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সহসভাপতি উষাতন তালুকদার।

তিনি শনিবার সকালে রাঙামাটি শহরের জিমনেসিয়াম চত্বরে জনসংহতি সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত পূর্ণাঙ্গ চুক্তি বাস্তবায়নের দাবিতে গণসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন।

জনসংহতি সমিতির রাঙাামটি জেলার সভাপতি সুবর্ণ চাকমার সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রাঙামাটির সাংসদ ও জনসংহতি সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি ঊষাতন তালুকদার। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জেলার কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক অশোক সাহা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসনের বিভাগের অধ্যাপক হোসাইন কবির, কেন্দ্রীয় পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুমন মারমা, জেলা যুব সমিতির সাধারণ সম্পাদক অরুণ ত্রিপুরা, কেন্দ্রীয় জনসংহতি সমিতির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মঙ্গল কুমার চাকমা, আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা।
বক্তারা চুক্তি বাস্তবায়নে সরকারকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, দুই দশক পর এসেও চুক্তির মৌলিক ধারা বাস্তবায়ন না হওয়া বড় হতাশার। বর্তমান সরকার দুই মেয়াদে নয় বছর ক্ষমতায় বর্তমানে থাকলেও চুক্তির মৌলিক ধারাগুলো বাস্তবায়ন না হওয়ায় বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

আরো দেখুন

রাজস্থলীতে আলোচনা সভা ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত

রাঙামাটির রাজস্থলীতে মঙ্গলবার তথ্য অফিস কাপ্তাই ও গণযোগাযোগ অধিদপ্তর তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক বর্তমান সরকারের উন্নয়ন …

17 মন্তব্য

  1. কারন তোমরা বার্মিস সেটেলার বলে

    • না জেনে বাজে কথা বলবেন না, কে বা কারা সেটেলার পাহাড়ে গিয়ে দেখে আসেন…

    • তোমার থেকে শেখার লাগবে না, কমেন্ট করার বাংলাদেশের ইতিহাস সম্প‌র্কে স্টা‌ডি ক‌রে অা‌সো, রাঙ্গামা‌টি‌তে অামার জন্ম, এ মা‌টির সা‌থে অামার না‌ড়ির সম্পর্ক , অামার থে‌কে তোমার বেশী জানার কথ‌া না, শোন ইচ‌ড়ে পাকা হওয়ার ট্রাই কর‌ো না, এগু‌লো ভা‌লো না৷ আগে বাঙ্গালি বাংলাদেশী হওয়ার ট্রাই ক‌রো

    • বাংলাদেশ সবার, ঠিক রাঙ্গামাটি পাবর্ত্য জেলা সবার,এখানে সবাই আসতে পারবে,যেতে পারবে,জে,এস এস,এর কারন পাঁহাড়ে চাঁদা বাজি বেড়েছে, আর একটা কথা,আমার জন্ম এই রাঙ্গামাটি মাটিতে,

    • Ahmed Rizwanul Islam… অপরিচিত যে কেউকেই তুমি সম্বোধন করাটা অভদ্রলোকের কাজ। রাঙ্গামাটি আছেন খুব ভালো, আপনার তো ভালো জানার কথা। অথচ জানেন ভুল…

      মন বড় করে সব দেখুন, জানুন, নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে বুঝার চেষ্টা করুন…

      এবং অপরিচিতদের আপনি বলুন, এতে মানুষ আপনাকে অভদ্র বলবে না। ভালো থাকবেন…

    • বাংলা‌দে‌শে রাঙ্গামা‌টি‌তে থে‌কে ক‌য়েক মাস এলাকার থে‌কে অবস্থা অবজারভ ক‌রো,যদি মানু‌ষের হুস থা‌কে তাহ‌লে সব কিছু বুঝ‌বে, অার হা তোমার ফেবু‌ প্রোফাইল দে‌খে অামার থে‌কে তোমা‌কে বয়‌সে ছোটই ম‌নে হ‌য়ে‌ছে, তার পর ও য‌দি এই কার‌নে ম‌নে কষ্ট পাও, স‌রি তার জন্য৷

    • He is not your fucking buddy to talk to him in such way. They hate us cause what we did to them.

    • অপরিচিত কাউকেই তুমি বলা যায় না, ছোট হোক বা বড়। এটা হয়তো শিখেন নাই…

      শিখে নেবেন, তাইলে ভবিষ্যৎে আপনাকে কেউ অভদ্রলোক বা ছোটলোক বলে অপমান করবে না…

      অভদ্রলোকের ব্যবহারে মনে কষ্ট পাবার প্রশ্নই আসে না ভাই, ইতিহাস না জেনে আমি কথা বলছি না। আমার বাবা মানুষের সাথে আচার ব্যবহার শেখানোর পাশাপাশি ইতিহাসও শিখিয়েছেন, জানিয়েছেন। আর হ্যাঁ উনার জন্ম ১৯৫২ সালে এবং মুক্তিযুদ্ধে ছোটখাটো ভূমিকাও রেখেছিলেন…

      Hereby I end my conversation with you Mr Ahmed Rizwanul Islam

    • তোমা‌কে কেউ শুরু কর‌তে ব‌লে নাই, শেষও কর‌তে ব‌লে নাই, ভ‌বিষৎ এ এরপর তিন পাবর্ত্য এলাকা ন‌ি‌য়ে কথা বলার অা‌গে স‌ঠিক ইতিহাস জেনে কথা বল‌বে, অার হা জা‌নো তো মহান স্বাধীনতার ১০/১২ বছর পর ও মু‌ক্তিযোদ্ধা হওয়া যায়, যে স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ ক‌রে সে কখ‌নোই ছোট খাট মু‌ক্তি‌যোদ্ধা হ‌তে পা‌রে না, অামার প‌রিবা‌রেও বেশ ক‌য়েকজন মহান মু‌ক্তিযোদ্ধা অা‌ছে , এসব জি‌নিস বাজা‌নোর জি‌নিস না, তোমার যে কি ধর‌নের সম্মান অা‌ছে উণা‌দের প্র‌তি তা বোঝা হ‌য়ে গে‌ছে৷

    • Ahmed Rizwanul islam তুমি যে সত্যিকারের সেটেলারের বাচ্চা তা তোমার কথাতেই বুঝা যায়। তুমি সেটেলারের কত নাম্বার প্রজন্ম। নিশ্চয় তোমার বাপ দাদারা গিয়ে খুঁটি গেড়েছে এখন সেইজোরে নিজেকেই পাহাড়ের বলে দাবী করছ। আমরা আদিবাসীরা কি আকাশ থেকে পড়ছি নাকি।
      আর একটা কথা ভদ্রতা বা ভদ্র ভাষা ব্যাবহার শিখ তা না হলে ঐ চাপার কারনেই তুমি তোমার বাপ দাদার ভিটায় ফিরতে বাধ্য হবে।

    • তোমরা যেভা‌বে চাদাবা‌জি অপহরন ক‌রে পার্বত্য এলাকার বারটা বাজা‌চ্ছো, তা‌তে কিছু দিন প‌রেই তোমা‌দের বাপ দাদার ভি‌টেয় ( বার্মায়) চ‌লে যে‌তে হ‌বে, অামা‌দের সেনাবা‌হিনী য‌দি একবার গ‌র্জে উঠে, তাহ‌লে তো‌দের অবস্থা শ্রীলঙ্কার তা‌মিল‌দের ম‌তো হ‌বে, সময় থাক‌তে সাবধান হয়া য? তো‌দের অামার যাই হোক, পার্বত্য এলাকা বাংলা‌দে‌শেরই থাক‌বে, বেটার হয় তো‌দের রাজার ম‌তো তোরা ফা‌কিস্ত‌নি বা বার্মা বা ভার‌তে গিয়া মর৷

    • Deba, andda thrtapi khaite na chaile barmai giya mor, na hoile togo obosta rohingar moto hoibo, dighinalar kotha mone ache, somoi thakte dure giya mor, shala bohingar baccha.

    • Bangladeshe chakmader ato boro boro kotha keno……,,,chakmara tuder porini kokon ki hoy janos

  2. এভাবে কথা বললে ওরা কষ্ট পায়, ওরাও মানুষ, ওরাও এই দেশের নাগরিক, জেএসএস ইউপিডিএফের দায় সমগ্র পাহাড়ী কেন নিবে??
    অনেক পাহাড়ীরা বাঙালীর চাইতেও নির্যাতিত বেশী
    সাধারণ পাহাড়ীরা এসব পছন্দ করে না
    তারা চায় মিলে মিশে একসাথে থাকতে
    আমরা যখন তাদের বার্মিস বলি, বার্মা চলে যেতে বলি তারা অনেক কষ্ট পায়, যেমন কষ্ট পাই আমরা আমেদের সমতলে চলে যেতে বললে!!
    তাই গালি দিয়ে কটাক্ত করে কথা বললে শুধু বিদ্ধেষই বাড়বে, শান্তির জন্য আমাদের এসব পরিহার করতে হবে কাউকে গালি দেওয়া যাবেনা
    আমরা সবাই রক্তে মাংসে গড়া মানুষ, আমাকে মারলে আমি যেমন ব্যাথা পাবো ঠিক তারাও পাবে, তাই আসুন হিংসা বিদ্ধেষ নয় শান্তির জন্য সকলে মিলেমিশে থাকি মিলেমিশে কাজ করি,ধন্যবাদ, কেউ কষ্ট পেলে ক্ষমা করবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four × one =